Home / এক্সক্লুসিভ / এই 5 জন বলিউড অভিনেতা অ’ন্তরঙ্গ দৃশ্যে নিজেদের কে নিয়ন্ত্রণ করতে পারেনি, একজন এর জন্য তো সুটিং বন্ধ করতে হয়ে ছিলো

এই 5 জন বলিউড অভিনেতা অ’ন্তরঙ্গ দৃশ্যে নিজেদের কে নিয়ন্ত্রণ করতে পারেনি, একজন এর জন্য তো সুটিং বন্ধ করতে হয়ে ছিলো

বলিউডের রোমান্টিক দৃশ্যটি বিশ্বজুড়ে পছন্দ হয় তবে এই রোমান্টিক দৃশ্যের চিত্রায়নের মান কেউ জানে না। অনেক সময় রোমান্টিক দৃশ্যের চিত্রায়ণ চলচ্চিত্র নির্মাতাদের জন্য এক ঝাঁকুনিতে পরিণত হয়।

এর বাইরে অন্তর’ঙ্গ দৃশ্যগু’লি মাঝে মধ্যে অ’ভিনেত্রীদের শোষণের ভিত্তি হয়ে ওঠে, যার ফলে পরে অ’ভিনেতারা অসুবিধার মুখোমুখি হন।এমন পরিস্থিতিতে, আজ আমর’া চলচ্চিত্রগু’লিতে প্রদর্শিত এমন রোমান্টিক দৃশ্যের কথা বলছি, যার অধীনে অ’ভিনেতারা পেশাদার পাশাপাশি ব্যক্তিগতও হয়ে উঠেন। আসুন জেনে নেওয়া যাক কোন দৃশ্যগু’লি যেখানে অ’ভিনেতারা ব্যক্তিগত হয়েছিলেন।

সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, দলিপ তাহিল একবার জয়া প্রদার সাথে কাজ করছিলেন, তারপরে শ্যুটিংয়ের সময় এমন কিছু ঘটেছিল যার কারণে দালিপ তাহিল সবার সামনে বিব্রত হয়েছিল। আসলে জয়া প্রাদের একটি ছবিতে দালিপ তাহিলের সাথে একটি অন্তর’ঙ্গ দৃশ্যের শুটিং করার কথা ছিল, এই দৃশ্যের জন্য, ক্যামেরা চালু হওয়ার

সাথে সাথে ডালিপ তাহিল নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারেনি এবং তিনি জয়া প্রদা কে শক্ত করে ধরে ফেলেন। এর পরে, জয়া প্রদা অনেক কষ্ট পেয়েছিলেন, তাই তিনি নিজেকে মুক্ত করার চেষ্টা শুরু করেছিলেন।এসময় তিনি দলিপ তাহিলকে জোর করে চড় মা’রেন এবং বলেন যে এটি শুটিং ফ্লোর, আসল নয়।

জ্যাকলিন আর সি’দ্ধার্থ।এ জেন্টলম্যান ছবির শুটিং চলাকালীন তাদের সম্পর্কের খবর প্রচুর ছিল, এই ছবিতে দুজনেরই চুম্বনের দৃশ্য ছিল। কথিত আছে যে শুটিং চলাকালীন দুজন একে অ’পরকে চুমু খেতে এতটাই ম’গ্ন ছিল যে পরিচালকদের কা’টা বলার শব্দও শুনতে পেল না তারা। অর্থাৎ দুজনেই একে অ’পরকে বাস্তবের চুমু খেতে শুরু করলেন। লাগি না ছোতে গানটিতে প্রদর্শিত চুম্বনের দৃশ্যটি দীর্ঘতম চুম্বনের দৃশ্য বলে মনে করা হয়।

80 এবং 90 এর দশকের বেশিরভাগ চলচ্চিত্রের ধ’র্ষণের দৃশ্য ছিল, চলচ্চিত্র নির্মাতারা বলছেন যে এই জাতীয় দৃশ্যের কারণে ছোট ছোট শহর এবং গ্রামে ছায়াছবি দেখা যেত। 1989 সালে, মিথুন এবং মাধুরীর একটি ছবিতে একইরকম দৃশ্য ছিল। এই দৃশ্যে ছবিটির খলনায়ক রণজিৎ তাকে মাধুরী দীক্ষিতের সাথে জোর করার চেষ্টা করেছেন। কথিত আছে যে এই দৃশ্যের শুটিং চলাকালীন রঞ্জিত তার মেজাজ হারিয়েছিলেন এবং রঞ্জিতের অ্যান্টিকস দেখে মাধুরী দীক্ষিত সত্যিই ভয় পেয়েছিলেন।

দয়াবান ছবিতে বিনোদ খান্না ও মাধুরী দীক্ষিতের মধ্যে অনেক অন্তর’ঙ্গ দৃশ্য ছিল, এই দৃশ্যগু’লি চিত্রায়নের সময় বিনোদ খান্না এতটাই নিয়ন্ত্রণহীন হয়ে পড়েছিলেন যে আজও আলোচিত তিনি। এই ছবির শ্যুটিং শেষ হলেও অন্তর’ঙ্গ দৃশ্যের জন্য মাধুরী দীক্ষিতকে সমালোচনার মুখোমুখি ‘হতে হয়েছিল। এরপরে মাধুরী দীক্ষিত তাঁর চলচ্চিত্র কেরিয়ারের সবচেয়ে বড় ভুল হিসাবে দয়াবান ছবির অন্তর’ঙ্গ দৃশ্যটিকে বিবেচনা করেছিলেন।

২০১৩ সালে প্রকাশিত ইয়ে জওয়ানি হে দেওয়ানি-র একটি দৃশ্য, যেখানে এভলিন শর্মা হাঁটুতে আঘা’ত পান এবং তারপরে রণবীর কাপুরের সাথে ফ্লার্ট করেন। কথিত আছে যে রণবীর কাপুর এভলিন শর্মাকে ফ্লার্ট করতে এতটাই ম’গ্ন ছিলেন যে পরিচালক অয়ন মুখোপাধ্যায় সেই দৃশ্যের জন্য তিনবার কাটতে হয়েছিল।

Check Also

রাতে ঘুমানোর আগে যে পানীয় ১ গ্লাস খেলে উ’ধাও মেদ-ভুঁড়ি!

দিনে দিনে আমাদের ব্যস্ততা যেন বেড়েই চলছে। কোন অবসর নেই আমাদের জীবনে! ঠিক ব্যস্ততার সাথে …