Home / এক্সক্লুসিভ / মা’রাত্মক ছয় রোগের কারণ অনিয়মিত ঘুম!

মা’রাত্মক ছয় রোগের কারণ অনিয়মিত ঘুম!

প্রতিটি মানুষের জন্যই ঘুম খুব জরুরি। নইলে সুস্থ থাকা তো দূরে থাক, বেঁচে থাকাই ক’ষ্ট’কর হয়ে পরবে। পর্যাপ্ত ঘুম শরীরে প্রশান্তি, মন প্রফুল্ল, কর্মস্পৃহা বৃদ্ধি করে। তাইতো পর্যাপ্ত ঘুম সবার জন্য প্রয়োজন। নইলে তা আপনার জন্য ডেকে আনবে মা’রাত্মক বিপদ।

তবে বর্তমান জীবনযাত্রায় মানুষ ঘুমের ব্যাপারে খুব অমনোযোগী। কারণে কিংবা অকাণেই রাত জেগে থাকছেন। যার ফলে ঘুমের সময় ক্রমশ কমে আসছে। অনেকেই হয়তো জানেন না, অনিয়মিত ঘুমের কারণে ছয়টি মা’রাত্মক রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁ’কি বাড়ে। চলুন জেনে নেয়া যাক সেগু’লো-

ডায়াবেটিসের ঝুঁ’কি বাড়ে

অনেকেই মনে করেন ডায়াবেটিস বংশগত কারণে হয়ে থাকে। যা সঠিক হলেও, অনিয়মিত ঘুমও এর জন্য দায়ী। দীর্ঘদিন রাতে অনিয়মিত ঘুমানো বা কম ঘুমানোর ফলে শরীরে ইনসুলিন উৎপাদন ব্য’হত হয়। যার ফলে ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁ’কি বাড়তে থাকে।

মানসিকতা নষ্ট হয়

পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুম না হলে আমা’দের মস্তিষ্ক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। মস্তিষ্কে ওরেক্সিন নামের একটি নিউরোট্রান্সমিটার আছে যা মস্তিষ্ককে সচল রাখতে সহায়তা করে। কিন্তু প্রতিদিন পর্যাপ্ত ঘুমের অভাবে ওরেক্সিন উৎপাদনের গতি মন্থর হয়ে যায়। যার ফলে মস্তিষ্কের কর্ম ক্ষমতা কমতে থাকে। মস্তিষ্ক পর্যাপ্ত পরিমাণ বিশ্রাম না পেলে অ’তিরিক্ত বিষণ্ণতা, হ্যালুসিনেশনের, স্মৃ’’তিভ্রংশের মতো একাধিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। দিনে দিনে নিজের বিচার বিশ্লেষণ করার ক্ষমতাও লোপ পেতে পারে।

হার্টের সমস্যা বৃদ্ধি

আমা’দের ঘুমের সময় হৃদপিণ্ড এবং র’ক্তনালী কিছুটা হলেও বিশ্রাম পায়। কিন্তু ঘুম না হলে বা কম হলে প্রতিনিয়ত কার্ডিওভ্যস্কুলার সমস্যা বাড়তে থাকে। এর ফলে হার্টের সমস্যা বাড়তে থাকে।

উচ্চ র’ক্তচাপের সমস্যা বৃদ্ধি

চিকিৎসকদের মতে আম’রা না ঘুমালে আমা’দের শরীরের ‘লিভিং অরগানিজম’ গু’লো ঠিক মতো কাজ করতে পারে না। নষ্ট ‘হতে পারে শরীরের হরমোনের ভারসাম্য। বাড়তে পারে উচ্চ র’ক্তচাপ, হাইপার টেনশনের মতো সমস্যা। তাই উচ্চ র’ক্তচাপের সমস্যা এড়াতে ঘুম খুব জরুরি।

শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা নষ্ট করে

ঘুমের কারণে আমা’দের শরীরের ক্ষয়-ক্ষতি পূরণ ও শক্তি সঞ্চয় হয়। যখন আম’রা ঘুমাই, তখন আমা’দের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার জন্য দায়ী ‘লিভিং অরগানিজম’ (Living organisms) কাজ করতে থাকে। কিন্তু আম’রা না ঘুমালে এই ‘লিভিং অরগানিজম’গু’লো কাজ করতে পারে না। ফলে ক্রমশ আমা’দের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমতে থাকে।

হ’জমের সমস্যা বৃদ্ধি করে

প্রতিদিন পর্যাপ্ত ঘুম না হলে হ’জমের সমস্যাও বাড়ে। না ঘুমালে শরীরের পাচন ক্রিয়ায় সাহায্যকারী অ’ঙ্গ-প্রত্য’ঙ্গগু’লো সঠিক ভাবে কাজ করতে পারে না। ফলে খাবার হ’জমে সহায়ক পাচক রসগু’লো উপযুক্ত মাত্রায় নিঃসরণে বাধা পায়। তাই হ’জমের নানা সমস্যা শুরু হয়।

অ’তএব বুঝতেই পারছেন, আমা’দের দৈহিক প্রায় সব কার্যকলাপই ঘুমের উপরে নির্ভরশীল। তাই নিজের প্রতি অবহেলা নয়। প্রতিদিন অন্তত ৬ থেকে ৭ ঘণ্টা ঘুমানোর অভ্যাস গড়ে তুলুন। তবে ঘুম না আসলে ঘুমের জন্য কোনো ওষুধ সেবনের আগে চিকিৎসকের পরাম’র্শ নিন।

Check Also

অভিমানে অবশেষে প্রাণটাই শেষ করে দিল নববধূ

প্রে’মের ব’ন্ধ’নে জ’ড়ি’য়ে বিবাহব’ন্ধনে আ’ব’দ্ধ হয়েও কপালে সুখ জো’টেনি জেস’মিন আ;ক্তার রিমির (২৫)। প্র’ভাবশালী প’রিবারের …