Home / এক্সক্লুসিভ / পুরুষের শ’রীরের এই অ’ঙ্গ গুলো নারীদের খুব পছন্দ,পুরুষদের জানা দরকার

পুরুষের শ’রীরের এই অ’ঙ্গ গুলো নারীদের খুব পছন্দ,পুরুষদের জানা দরকার

পুরুষের শরীরের কোন কোন অ’ঙ্গগুলোকে নারীরা অ’ত্যাধিক পছন্দ করেন এই বিষয়ে সম্প্রতি এক ছোট্ট গবেষণা করা হয়।
গবেষণায় প্রায় ১০০ জন মহিলাকে এই প্রশ্নটি করা হয়ে থাকে যে পুরুষদের কোন কোন অঙ্গগুলো তাদের সবচেয়ে বেশি পছন্দের।
তাদের উত্তরের আনুপাতিক গড় হিসেবে নিচের অঙ্গগুলোর কথা উঠে আসে। চলুন জেনে নেওয়া যাক:

১. চওড়া বক্ষ : পুরুষদের আকর্ষণীয় অঙ্গের মধ্যে আরেকটি হল তাদের চওড়া ব’ক্ষ।অনেক পুরুষ আছেন যারা জিমে গিয়ে অস্বাভাবিক দেহ তৈরি করেন। এই ধরনের পুরুষের দেহ নয় বরং যাদের প্রকৃতিগতভাবেই চওড়া বক্ষ রয়েছে তাদেরই পছন্দ করেন মহিলারা। এছাড়া চওড়া বক্ষের অধিকারী এসব পুরুষের স্ত’নের গড়নও তাদের বেশ ভালো লাগে। তারা যখন ঘামেন তখন তাদেরকে অনেক বেশি আকর্ষর্ণীয় লাগে বলে অধিকাংশ নারীরা জানিয়েছেন।

২. চওড়া কাঁধ : বেশিরভাগ মহিলার মুখেই এই উত্তরটি শোনা যায় যে তারা পুরুষদের চওড়া কাঁধকেই অনেক বেশি পছন্দ করেন। তাদের ভাষ্যমতে যার কাঁধ যত বেশি চওড়া হবে সেই পুরুষ তত বেশি হট আর সুদর্শন।
৩. সুমিষ্ট ঠোঁট : ঠোঁট যে শুধু নারীরই আকর্ষণীয় হয়ে থাকে তা নয় একজন পুরুষেরও ঠোঁট অনেক বেশি আকর্ষণীয় আর সুমিষ্ট হতে পারে বলে এমনটা মন্তব্য করেন অনেক নারী। তবে বেশিরভাগ নারীই চিকন ঠোঁটের অধিকারী পুরুষদেরই বেশি পছন্দ করেন।

৪. আকর্ষণীয় পেশী : পেশীবহুল পুরুষকে যে কারও দেখতে ভালো লাগে। তবে তৈরি করা অস্বাভাবিক পেশী অনেক নারীই অ’পছন্দ করেন।মহিলারা বলেন, পুরুষকে তখনই অনেক বেশি আকর্ষণীয় দেখায় যখন নাকি তার পেশীবহুল বাহু টি-শার্টের মধ্য দিয়ে ফুটে ওঠে।
৫. আকর্ষণীয় হিপ : মহিলাদের হিপের সৌন্দর্যের পাশাপাশি পুরুষের হিপের সৌন্দর্য থাকাও উচিত। হিপের স্বাস্থ্য বেশি কমও না আবার বেশি
মেদযুক্তও না এমন ধরনের হিপ নারীরা পছন্দ করে থাকেন। সুতরাং দেখা যায় যে পুরুষদের অঙ্গের মাঝে হিপকেও অনেক বেশি প্রাধান্য দিয়ে
থাকেন নারীরা।

৬. স্বাস্থ্যকর হাত : অনেক পুরুষই আছেন যাদের বয়সের তুলনায় হাতের স্বাস্থ্যের গড়ন ঠিকভাবে হয়নি। অর্থাৎ তাদের হাতগুলো অনেকটা
অস্বাস্থ্যকর মনে হয়। মহিলারা পুরুষদের এমন বাহু একেবারেই পছন্দ করেন না। তারা স্বাস্থ্যকর হাত পছন্দ করেন যেখানে কোনও অ’তিরিক্ত
মেদও থাকবে না পাশাপাশি একেবারেও রোগাও হবে না।

শারীরিক সম্পর্কের মধ্যে সন্তুষ্টি খুবই মুখ্য একটি বিষয়। গবেষণায় দেখা গেছে, নারীদের মি,লনের প্রতি সন্তুষ্টি বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বৃদ্ধি
পায়।বয়স ৪০-এ গড়ানোর পর থেকেই নারীদের শারীরিক সম্পর্কে ক্রমশ সন্তুষ্টি বাড়তে থাকে।সম্প্রতি ৪০ বছর থেকে ১০০ বছর বয়সী

নারীদের নিয়ে একটি গবেষণা করা হয়। এ গবেষণায় প্রায় দেড় হাজার নারী অংশগ্রহণ করেন। যেখানে দেখা যায়, বয়স বেশি হওয়া সত্ত্বেও
অর্ধেকের বেশি নারী তাদের শা,রীরিক সম্পর্কে বেশ সক্রিয়।

এমনকি মিলনের সময় প্রচুর উত্তেজিত হতে সক্ষম।পরবর্তীতে দেখা যায়, যাদের বয়স ৫৫ বছরের কম কিংবা ৮০ বছরের বেশি তারাও মিলনে
সর্বাধিক সন্তুষ্টি পান বলে সাক্ষাৎকারে জানান।অংশগ্রহণকারী নারীদের ওপর যৌ,ন সংক্রমণ ও যৌ,ন জীবনে হ,রমোন থে,রাপির প্রভাবকে
কেন্দ্রে রেখে এ গবেষণা করা হয়। গবেষণার ফলাফলটি গত জানুয়ারিতে আমেরিকান জার্নাল অব মেডিসিনে প্রকাশ করা হয়।

এক সাক্ষাৎকারে গবেষক এলিজাবেথ ব্যারেট-কনর বলেন, ‘আমি খুবই আশ্চর্য হয়েছি যখন জানলাম ৮০ বছরের বেশি বয়স হওয়া সত্ত্বেও
নারীরা মি,লনে সর্বাধিক স,ন্তুষ্টি পান।’তিনি বলেন, ‘বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে নারীদের যৌ,ন কা,র্যকলাপ কমে যাওয়াতে মিলনের প্রতি
অপেক্ষাকৃত ঝোঁ,ক কম দেখা যায়। অধিকতর বয়স্ক নারীরাও কিন্তু যৌ,নতার দিক দিয়ে নিয়মিত সক্রিয় নন।

তবে যৌ,ন কা,র্যকলাপে ঠিকই স্বা,চ্ছন্দ্যবোধ করেন। আর এ ধরনের বয়স্ক নারীরা সো,হাগপূর্ণ স্পর্শে, দী,র্ঘকালীন ঘনিষ্ঠ পরিচয়ে অন্তর
,ঙ্গতার বিনিময়েও স,ন্তুষ্টি পান।’গবেষণায় আরও দেখা যায়, কোন ধরনের শা,রীরিক সম্পর্ক না করেও সুস্বাস্থ্যবান আছেন কিছু নারী।
৬৫ বছরের কম বয়সী না,রীরা মি,লনের দিক দিয়ে সক্রিয়।তবে গবেষকরা এখনও স্পষ্ট নন যে, নিয়মিত যৌ,ন কার্যকলাপের মাধ্যমেই

কি সন্তুষ্টি বাড়ে নাকি কাছাকাছি অন্য কোনো উপায়ে।অন্যদিকে যৌ,ন রো,গের অধিকাংশ গবেষণায় দেখা যায়, অল্পবয়সীদের প্রধান
অভিযোগ হলো, নিয়মিত যৌনতাতে খুব কম আগ্রহ পান তারা। বয়স্ক নারীরাও যে কেবল শারীরিক সম্পর্কে আগ্রহী তেমন কিন্তু নয়।
তবে অল্পবয়সীদের তুলনা তারা মিলন ব্যতীত যৌ,ন কার্যকলাপের মাধ্যমে স,ন্তুষ্টি অর্জনে বেশি স্বা,চ্ছন্দ্যবোধ করেন।

অনেকের কাছে মিলনের সর্বোচ্চ সন্তুষ্টি মানেই চমৎকার যৌ,ন সম্পর্ক। আবার অনেকেই ভাবেন যৌ,ন কার্যকালাপ কমে যাওয়ার কারণেই
মি,লনের প্রতি আগ্রহ কমে গেছে।তবে গবেষণাটির পেছনে আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ হচ্ছে, অনেকেই মনে করেন বয়স বাড়ার সঙ্গে
সঙ্গে শা,রীরিক সম্পর্কের প্রতি তৃপ্তি বা ঝোঁক কমে যায়। তাদের এই ভ্রা,ন্ত ধারণা দূর করতেই এখানে বলা হয়েছে, বয়স্ক দম্পতিদের জন্য
আগামীতে সন্তো,ষজনক সম্পর্ক অপেক্ষা করছে।

Check Also

মাংসে লবন কম হয়েছে বলায়, মেয়ের জামাইকে পে’টালেন শ্বাশুড়ি

বাংলা সাহিত্যে জামাই ষষ্ঠীর তেমন রমরমা দেখা না গেলেও, অস্বীকার করার উপায় নেই, বাঙালির সংস্কৃতিতে …