Home / এক্সক্লুসিভ / ৭৭ বারের চেষ্টাতেও বন্ধুর স্ত্রীকে গ’র্ভবতী করতে ব্য’র্থ ওতপর

৭৭ বারের চেষ্টাতেও বন্ধুর স্ত্রীকে গ’র্ভবতী করতে ব্য’র্থ ওতপর

আফ্রিকান এই নাগরিকের মা’মলাটি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পর অনলাইন দুনিয়ার খোরাকে পরিণত হয়েছে। ৫০ বছর বয়সী এই পুলিশকর্মী ব’ন্ধ্যা সমস্যায় ভুগছিলেন। নিজে ছিলেন সন্তান জন্মদানে অ’ক্ষম। তবে সন্তানের আ’কাঙ্খা ছাড়তে পারেননি। তাই ফন্দি এঁটে বন্ধুকে দায়িত্ব দিয়েছিলেন স্ত্রীকে গর্ভ বতী করার।বন্ধুও তেমনই! মোট ৭৭ বার চেষ্টা করেও বন্ধুর স্ত্রীকে গ’র্ভবতী করতে পারেননি।এতেই ক্ষি’প্ত হয়ে

এবার বন্ধুর বিরুদ্ধে প্র’তারণার মা মলা দায়ের করেছেন তানজানিয়ার পুলিশকর্মী দারিয়াস মাকামবাকো।চিকিৎসকরা জানিয়ে দেন, ‘সন্তান সম্ভব নয়।’ ৬ বছরের বিয়ের পর সন্তান না হওয়ায় অবসাদে ভুগছিলেন ৪৫-এর স্ত্রীও। এই সময়ই অদ্ভুত এই ফন্দি আসে দারিয়াসের মাথায়।৫২ বছরের বন্ধু ইভান্স মাস্তানোর দ্বারস্থ হন দারিয়াস। অনুরোধ, ‘আমার স্ত্রী’কে অন্তঃসত্ত্বা করতে হবে।প্রথমে রাজি না হলেও, ২০ লাখ তানজিনিয়ান সিলিং অর্থাৎ বাংলাদেশি মুদ্রায়

প্রায় ৭৫ হাজার টাকায় রাজি হন ইভান্স। শর্ত, ‘আগামী ১০ মাসে সপ্তাহে ৩ বার করে যৌ ‘ন সং গম করতে হবে। এবং স্ত্রীকে গ’র্ভবতী করতে হবে।দারিয়াস মাকামবাকো এই যুক্তিতে খুশি হননি। টাকা ফেরত চেয়ে মামলা করেন বন্ধু ইভান্সের নামে। তবে ইভান্সের দাবি, ‘আমি তো কোনও গ্যারান্টি দিইনি। তাহলে টাকা ফেরত কেন দেব?চুক্তি অনুযায়ী মোট ৭৭ বার

কসরত’ করেন ইভান্স। তবে ফল মেলেনি। পরে চিকিৎসকরা জানান, ইভান্সও ব ন্ধ্যা। যদিও এই দাবি স্বীকার করতে রাজি ছিলেন না ইভান্স। কারণ, তাঁর দুই সন্তান রয়েছে। যদিও পরে পরিস্থিতির চাপে পড়ে ইভান্সের স্ত্রী স্বীকার করতে বাধ্য হন, ওই সন্তানেরা ইভান্সের নয়, বরং তাঁর ভাই এডওয়ার্ডের।

আরো পড়ুন জামাইয়ের লা’শ দেখতে গিয়ে প্রা’ণ গেল শ্বশুরসহ ৩ জনের জামাইয়ের লা’শ দেখতে গিয়ে- নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার রংপুর-ডোমার-পঞ্চগড় সড়কের অবিলের বাজার নামক স্থানে বাস-মাইক্রোবাস সং’ঘর্ষে একই পরিবারের ৩ জন নি’হত হয়েছেন। আ’হত হয়েছেন আরও ৮ জন। শুক্রবার ভোরে এই দুর্ঘ’টনা ঘটে।নি’হত তিনজনের মধ্যে দুইজনের নাম জানা গেছে।এরা হলেন- নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার খারিজা গোলনা নবাবগঞ্জ গ্রামের জহুরুল ইসলাম (৬৫) ও আনোয়ারা বেগম (৫৭)। আহ’তদের বাড়িও একই গ্রামে।

কিশোরগঞ্জ থা’না পু’লিশের ওসি হারুন অর রশীদ জানান, ওই গ্রামের জহুরুল ইসলামের জামাইয়ের বাড়ি বগুড়ার মোকামতলায়। তার জামাই হৃ’দরো’গে আ’ক্রান্ত হয়ে মা’রা যাওয়ায় তারা একটি মাইক্রোবাসে করে মোকামতলায় যাচ্ছিলেন।শুক্রবার সকাল ৭টার দিকে অবিলের বাজার নামক এলাকায় মাইক্রোবাসটি পৌঁছালে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা আজিজ ট্রাভেলসের সঙ্গে মুখোমুখি সং’ঘর্ষ হয়।

এতে ঘটনাস্থলে মাইক্রোবাসে থাকা জহুরুল ইসলাম ও তার বোন আনোয়ারা নি’হত হন আ’হত হন মাইক্রোবাসের চালকসহ আরও ৯ জন। আ’হতদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে সেখানে আরও একজন মা’রা যান। তবে তার নাম জানা যায়নি।কিশোরগঞ্জ দমকল বাহিনীর ইনচার্জ মো. রেদওয়ানুজ্জামান বলেন, দুর্ঘ’টনার খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার কাজ চালাই। আহ’তদের রংপুর মেডিকেলে ভর্তি করা হয়েছে।

আরো পড়ুন কারা’গার দেখতে বিদেশ যাচ্ছেন ১৩ কর্মকর্তা!বিদেশ যাচ্ছেন ১৩ কর্মকর্তা- এবার কারা’গার দেখতে ‘দেশের সকল কারা’গারে স্বজন লিংক স্থাপন’ প্রকল্পের আওতায় বিদেশ যাচ্ছেন ১৩ জন সরকারি কর্মকর্তা। সফরে তারা ব’ন্দি ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে বাস্তব অভিজ্ঞতা অর্জন করবেন।পরে তা দেশীয় কারা’গারগুলোর উন্নয়নে কাজে লাগাবেন।সম্প্রতি প্রকল্পটি অনুমোদনের জন্য পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো

হয়েছে। এ নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে দেশের শীর্ষস্থানীয় একটি গণমাধ্যম।প্রতিবেদন উল্লেখ করা হয়, এ প্রকল্পের আওতায় চারটি দেশ বাছাই করা হয়েছে। অস্ট্রেলিয়া, ব্রাজিল, কানাডা ও আর্জেন্টিনা এই চারটি দেশে দুটি গ্রুপে ভাগ হয়ে তারা সফর করবেন। সফরে সাতজন যাবেন অস্ট্রেলিয়া ও ব্রাজিল এবং ছয়জন যাবেন কানাডা ও আর্জেন্টিনায়। প্রতিটি গ্রুপ সাত দিন করে দেশগুলোতে অবস্থান করবে।

১৩ কর্মকর্তার মধ্যে কারা অধিদপ্তর থেকে আছেন চারজন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা বিভাগের তিনজন, পরিকল্পনা কমিশন থেকে তিনজন, এটুআই প্রকল্প থেকে দুইজন এবং প্রকল্প পরিচালক একজন। তবে কোন কোন কর্মকর্তা এ সফরে যাবেন, তা এখনো চূড়ান্ত হয়নি। অন্যদিকে এ বিদেশ সফর নিয়ে আপত্তি তুলেছে পরিকল্পনা কমিশন।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাওয়া তথ্য অনুসারে, প্রকল্পটি জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় তোলা হবে না। ফলে তা নিজ ক্ষমতাবলে অনুমোদন করতে পারবেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। সফরে মোট ব্যয় হবে ৪০ লাখ টাকা। সম্পূর্ণ খরচই রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে দেয়া হবে।

বিষয়টি নিয়ে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, জনগণের করের টাকায় এসব অপ্রাসঙ্গিক বিদেশ সফরের কোনো যৌক্তিকতা নেই। তাছাড়া যেসব দেশ নির্ধারণ করা হয়েছে, সেগুলোর সঙ্গে বাংলাদেশের অপ’রাধের ধরনের কোনো মিল নেই। দেশগুলোর আ’ইনি কাঠামোও বাংলাদেশের মতো নয়।

Check Also

অভিমানে অবশেষে প্রাণটাই শেষ করে দিল নববধূ

প্রে’মের ব’ন্ধ’নে জ’ড়ি’য়ে বিবাহব’ন্ধনে আ’ব’দ্ধ হয়েও কপালে সুখ জো’টেনি জেস’মিন আ;ক্তার রিমির (২৫)। প্র’ভাবশালী প’রিবারের …