Home / এক্সক্লুসিভ / বিদেশিটা দেখতে পারি, দেশের হলেই সমালোচনা: অর্ষা

বিদেশিটা দেখতে পারি, দেশের হলেই সমালোচনা: অর্ষা

আম’রা বিদেশি কনটেন্ট অবলীলায় দেখতে পারি। কিন্তু নিজের দেশের কিছু হলেই সমালোচনার ঝড় তুলি। এ নিয়ে তাই বেশি কিছু বলতে চাই না। সম্প্রতি ওয়েব সিরিজ ‘বুমেরাং’ ও বিভিন্ন বিতর্কিত ইস্যু নিয়ে দেশের একটি জাতীয় দৈনিককে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন দেশের ছোটপর্দার জনপ্রিয় মডেল ও অ’ভিনেত্রী নাজিয়া হক অর্ষা। সেই সাক্ষাৎকারের চুম্বক অংশ তুলে ধ’রা হল-

আপনার অ’ভিনীত ‘বুমেরাং’ ওয়েব সিরিজ নিয়ে যে সমালোচনার ঝড় বইছে, সে প্রসঙ্গে আপনার কিছু বলার আছে? আম’রা বিদেশি কনটেন্ট অবলীলায় দেখতে পারি। কিন্তু নিজের দেশের কিছু হলেই সমালোচনার ঝড় তুলি। এ নিয়ে তাই বেশি কিছু বলতে চাই না। শুধু আমি প্রশ্ন রাখতে চাই, যারা সামাজিক মাধ্যমে আমাদের নিয়ে বাজে মন্তব্য করেন, তারা আসলে কতটা ঠিক?

শুধু ওয়েব সিরিজ নয়, প্রতিটি বিষয় নিয়েই এরা বাজে মন্তব্য করে আসছেন। বরেণ্য কণ্ঠশিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী ব’ন্যাকে নিয়েও এরা বাজে মন্তব্য করতে ছাড়েনি। আমি মনে করি, এই সঠিক সমালোচনার বদলে যারা আজেবাজে কথায় ছড়াচ্ছেন, সেই শ্রেণিকে চিহ্নিত করা প্রয়োজন। নির্দিষ্ট একটি শ্রেণি যদি বাজে কথা ছড়ায়, তাহলে স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম থেকে ‘বুমেরাং’ ওয়েব সিরিজটি সরিয়ে নেওয়া হলো কেন?

প্রযোজক, প্রকাশকরা ভালো বলতে পারবেন, কাদের মন্তব্যের ভিত্তিতে তারা ‘বুমেরাং’ ওয়েব সিরিজটি স্ট্রিমিং পল্গ্যাটফর্ম থেকে সরিয়ে ফেলেছেন। যেহেতু ওয়েব সিরিজটি স্ট্রিমিং পল্গ্যাটফর্ম থেকে সরানো হয়েছে, তাই এ নিয়ে নতুন করে কিছু বলতে চাই না। আমা’র কথা হলো, যা কিছু করা হয়েছে, তা দর্শকের কথা ভেবেই।

কারণ প্রায় সময় তারা বলে থাকেন গৎবাঁ’ধা গল্পের কারণে নাট’ক দর্শকের কাছে পৌঁছাতে পারছে না। কিন্তু যখন চেনা ছকের বাইরে গিয়ে জীবনের সত্য ঘটনা নিয়ে গল্প বানানো হলো, তখন তা নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি হলো। আসলে এদেশের দর্শক কী’ চায়- এটাই এখনও স্পষ্ট নয়।

আপনার কী’ মনে হয়, কনটেন্টের চাইতে কাটপিসকে অনেকেই বড় করে দেখেছেন? চারদিকে যে ধরনের কথা শোনা যায়, তাতে মনে হয়েছে, অনেকে ‘বুমেরাং’ না দেখেই শুধু কাটপিস দেখে সমালোচনা করছেন। বিষয়টি দুঃখজনক। আমি সেই সব দর্শকের বলতে চাই, কাটপিস দেখে সমালোচনা করা ঠিক না। পুরো সিরিজে কী’ আছে, কী’ কারণে একেকটি দৃশ্য সেখানে তুলে ধ’রা হয়েছে- আগে সেটা যাচাই করে দেখু’ন, তারপর আপনার মতামত তুলে ধরুন।

Check Also

২৩ বছরের সংসার, ভালোবাসা দিবসে কিডনি দিয়ে স্ত্রীর প্রাণ বাঁচালেন স্বামী

ভালোবাসার জন্যে মানুষ কি না করে? এবার স্ত্রীকে বাঁচাতে নিজের কিডনি দিয়ে দিলেন স্বামী। ভ্যালেন্টাইনস …