Home / সারাদেশ / বড় ছে’লে খুঁজছে বাবাকে; মেঝ ছে’লে মুন্সিগঞ্জে উৎকণ্ঠায়, ছোট ছে’লে লা’শ

বড় ছে’লে খুঁজছে বাবাকে; মেঝ ছে’লে মুন্সিগঞ্জে উৎকণ্ঠায়, ছোট ছে’লে লা’শ

লঞ্চ ডুবিতে নি’হত মুন্সিগঞ্জের আব্দুর রহমানের স্ত্রী’, ছোট ছে’লের লা’শ খুঁজে পাওয়া গেলেও তার ম’রদেহ এখনো খুঁজে পাওয়া যায়নি।

মা ও ছোট ভাইয়ের লা’শ নিয়ে গত সোমবার অ’পেক্ষায় ছিলেন বাবা আব্দুর রহমানের (৪৮) লা’শ পাওয়ার আশায় দুই ভাই হাসিফ রহমান (২০) ও রিফাত রহমান (১৫)। কিন্তু লা’শ উ’দ্ধার না হওয়ায় নি’হত মা হাসিনা বেগম(৩৫) ও ছোট ভাই সিফাত (৯) এর লা’শ নিয়ে বাড়ি ফিরেন তারা। রাতে মা ও ছোট ভাইকে টঙ্গিবাড়ী উপজে’লার আব্দুল্লাহপুর কবরস্থানে দাফন করা হয়।

পরে গত মঙ্গলবার ভোরে বাবাকে খুঁজতে বের হয় হাসিফ রহমান। ট্রলার নিয়ে বুড়িগঙ্গার বুকে বাবাকে খুঁজছে সে। কমপক্ষে বাবার লা’শটি শুধু চাওয়া দুই ভাইয়ের। চরম উৎকণ্ঠা নিয়ে অ’পেক্ষা করছেন মুন্সিগঞ্জে অ’পর ভাই রিফাত। বাবার লা’শটি এনে মা ও ভাইয়ের কবরের পাশে দাফন করাতে চান তারা। কিন্তু মঙ্গলবার সন্ধ্যা পর্যন্ত নি’হত আব্দুর রহমানের কোন খোঁজ পাওয়া যায়নি।

নি’হতের ছে’লে রিফাত রহমান বলেন, তার বাবা আব্দুর রহমান ঢাকা জজ কোর্টে কাজ করতেন। তারা পুরাণ ঢাকায় কোসাই টিলা এলাকায় বসবাস করতেন। করো’নার কারণে লকডাউনে তার বাবার কাজ বন্ধ হয়ে গেলে তারা কয়েকমাস আগে তাদের দাদার বাড়ি টঙ্গিবাড়ী উপজে’লার আবদুল্লাহপুর গ্রামে চলে আসেন।

পরে তাদের ঢাকার ভাড়া বাসার কিছু ভাড়া বাকি থাকায় বাড়ির মালিক তাদের ফর্ণিচার আ’ট’কিয়ে রেখেছিলো। গত সোমবার সেই ফার্নিচার আনতে ঢাকা যাচ্ছিলো তার বাবা,মা ও ছোট ভাই। পরে সকাল ৯টার দিকে লঞ্চ ডুবির ঘটনা ঘটলে ওই লঞ্চ থেকে জীবিত সাঁতরে বাঁ’চা তাদের এক প্রতিবেশী জানায় তার বাবা, মা ও ভাই যে লঞ্চে ছিলো সেই লঞ্চ অ’পর একটি লঞ্চের সং’ঘর্ষে ডুবে গেছে। তারপর হতেই বাবা,মা ও ভাইয়ের খোঁজে বেরিয়ে পরেন তারা । পরে মা ও ছোট ভাইয়ের লা’শ খুঁজে পেলেও বাবার লা’শ খুঁজে পাননি এখনো।

Check Also

লকডাউনে কর্মহীন প্রতি পরিবার পাবে ৫০০ টাকা

লকডাউন চলাকালীন কর্মহীন প্রতিটি পরিবার পাবে নগদ ৫০০ টাকা। আর লকডাউন বাড়লে ওই পরিবারগুলোকে চাল, …