Home / Uncategorized / চীনের প্রেসিডেন্টের বদলে কিম জনের কু’শপুত্ত’লিকা দাহ করলো!(ভিডিও)

চীনের প্রেসিডেন্টের বদলে কিম জনের কু’শপুত্ত’লিকা দাহ করলো!(ভিডিও)

লাদাখে চীন সেনার আগ্রাসনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিন পিং নয়, বিজেপি কর্মীরা পোড়ালেন উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উনের কুশপুত্তলিকা। তাদের এই প্রতিবাদ সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। শুরু হয়ে গিয়েছে কটাক্ষ, সমালোচনাও।

গত সোমবার লাদাখ সীমান্তের গালওয়ান উপত্যকায় চীনা সেনাদের সঙ্গে সংঘর্ষে প্রাণ হারিয়েছেন ২০ ভারতীয় সেনা। এই ঘটনার প্রতিবাদে চীনা পণ্য বয়কটের ডাক দিয়েছে ভারতীয়রা। বিভিন্ন জায়গায় চলছে চীনবিরোধী বিক্ষোভ।

সেভাবেই বৃহস্পতিবার পশ্চিমবঙ্গের আসানসোলের বিজেপি কর্মীরা চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের কুশপুত্তলিকা দাহ করার কর্মসূচি গ্রহণ করেছিলেন। কিন্তু কর্মসূচি পালন করতে গিয়ে বেঁধেছে বিপত্তি।

স্থানীয় এক বিজেপি নেতা গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে কিম জং উনকেই বলে ফেলেছেন চীনের প্রেসিডেন্ট। এরপর থেকেই বিষয়টি হাসির খোরাক হয়ে দাঁড়িয়েছে সামাজিক যোগাযোগামধ্যমে।

এ নিয়ে অবশ্য অনেকে কটাক্ষও করেছেন। বলছেন, আসল শত্রুকে চিনতে না পারলে বিপদ আরও বাড়বে।

ভিসার ওপর কড়াকড়ি আরোপের ঘোষণা দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আজ-কালের মধ্যেই এ বিষয়ে ঘোষণা দেবেন তিনি। তবে নির্দিষ্ট বিদেশি শ্রমিকদের ওপর এ কড়াকড়ি আরোপ করা হবে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট।

শনিবার ফক্স নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, দুএকদিনের মধ্যে বিশেষ কিছু ঘোষণা করতে যাচ্ছি।

ভিসার ওপর নতুন কড়াকড়ি আরোপের ক্ষেত্রে কিছু ক্ষেত্রে ছাড় দেয়া হবে কি-না, এমন প্রশ্নের উত্তরে ট্রাম্প বলেন, খুব কম সংখ্যক।
তিনি বলেন, ‘বড় ব্যবসার জন্য তাদের দরকার আছে (তবে) তাদের মধ্যে নির্দিষ্ট লোকজন দীর্ঘদিন ধরে আমাদের দেশে আসছেন। কিছু সংখ্যক বাদে তাদের সংখ্যাটাও বেশি। এবং আমরা কিছু সময়ের জন্য ওপর কড়াকড়ি আরোপ করতে পারি।’

তবে ট্রাম্পের এ ঘোষণায় আপত্তি জানিয়েছেন সমালোচকরা। তারা বলছেন, ট্রাম্পের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসীদের সংখ্যা কমিয়ে আনা। এমনকি ভোটারদের কাছেও এ বিষয়ে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি। তাই সামনে নির্বাচনকে ঘিরে অভিবাসী কমাতে করোনাভাইরাস মহামারিকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করতে চাচ্ছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

তবে ট্রাম্পের অভিবাসন নীতির বিপক্ষে যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান প্রধান কোম্পানিগুলো। বিশেষ করে প্রযুক্তি কোম্পানিগুলো ট্রাম্পকে আহ্বান জানিয়েছেন বিদেশি শ্রমিকদের ওপর বাধানিষেধ আরোপ থেকে বিরত থাকার জন্য। তবে আশঙ্কা, এতে দেশের অর্থনীতি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

তবে ট্রাম্প ভিসার ওপর নতুন নিষেধাজ্ঞা আরোপ করলে তা হবে করোনাভাইরাস মহামারিজনিত অর্থনৈতিক বিপর্যয়ের কারণে অভিবাসন নীতির ওপর নেয়া তার সর্বশেষ পদক্ষেপ। এর আগে গত এপ্রিলে বিদেশি শ্রমিকদের ওপর সাময়িক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিলেন ট্রাম্প। বিদেশি নাগরিকদের স্থায়ী আবাসিক সুবিধা দেয়ার ওপর এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে ট্রাম্প প্রশাসন।
এসএইচ-২১/২১/২০ (আন্তর্জাতিক ডেস্ক)

Check Also

মন্ত্রীসভায় রদবদল,সবাইকে অবাক করে যারা হচ্ছেন নতুন মন্ত্রী

প্রাণঘা’তী করো’না ভাই’রাস ম’হামা’রির মধ্যেই মন্ত্রিসভায় নতুন মুখ অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে। চলতি বাজেট অধিবেশন শেষে যেকোনো …