Home / Healthy Recipe / সৌদিতে দুই প’তিতা’লয় থেকে ৭ বাংলাদেশি গ্রে’ফতা’র

সৌদিতে দুই প’তিতা’লয় থেকে ৭ বাংলাদেশি গ্রে’ফতা’র

সৌদি আরবের আল মানাখ জেলায় অবস্থিত দুটি পতিতালয়ে অভিযান চালিয়ে সাত বাংলাদেশিসহ ১৭ জনকে গ্রেফতার করেছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। রাজধানী রিয়াদ থেকে দক্ষিণে অবস্থিত ওই জেলায় দুই বাংলাদেশি মিলে পতিতাবৃত্তির নেটওয়ার্ক তৈরি করেছে বলে জানিয়েছে দেশটির পুলিশ।

গালফ নিউজকে রিয়াদ পুলিশের মুখপাত্র কর্ণেল শাকের আল তুওয়াইজরি বলেছেন, ‘আল মানাখ থেকে সাত বাংলাদেশি নাগরিককে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের মধ্যে দুজন সেখানে দুটি পতিতালয় গড়ে তুলেছেন। গৃহকর্মী নারীদের প্ররোচিত করে এখানে এনে যৌনকর্মী হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হতো।’

কর্ণেল শাকের আল তুওয়াইজরি আরও জানান, ‘অভিযুক্ত ব্যক্তিরা গৃহকর্মীদের যৌনকর্মী হতে প্ররোচিত করেন। তারা যাতে তাদের মালিককে (কোফিল) ফাঁকি দিয়ে পালাতে পারেন সেই কাজে তাদের সাহায্য করেন অভিযুক্তরা। এরপর এসব পতিতালয়ে এনে তাদেরকে যৌনকর্মী হিসেবে নিয়োগ দেন।’

তিনি জানান, ‘পুলিশ দুই পতিতালয়ে অভিযান চালিয়ে সাত বাংলাদেশিকে গ্রেফতার করেছে। এছাড়া পতিতাবৃত্তির অভিযোগে আরও দশজন নারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা সবাই এশিয়ার বিভিন্ন দেশের নাগরিক। বয়স ৪০ থেকে ৫০ এর মধ্যে। গৃহকর্মীর কাজের জন্য তারা সৌদিতে রয়েছেন।’
আদালতে হাজির করার আগে গ্রেফতার সবাইকে রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে বলেও গালফ নিউজের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

করোনা ভাইরাসের তান্ডবে যখন পুরো বিশ্বই বিদ্ধস্ত। এবং বিশ্বের বিভিন্ন দেশের চিকিৎসক ও বিজ্ঞানীরা যখন করোনার প্রতিষেধক আবিস্কারের কাজে ব্যস্ত। ঠিক তখনই করোনা ভাইরাস নিয়ে বড় একটি সুখবর দিয়েছে সৌদি আরব। মদিনার তাইবাহ ইউনিভার্সিটির একদল গবেষক দাবি করেছেন হাদিস অনুসারে কালোজিরা ব্যবহার করে করোনাভাইরাস আক্রান্তদের সম্পূর্ণ সুস্থ করা সম্ভব।

তাদের গবেষণাপত্রটি সম্প্রতি মার্কিন জার্নাল ‘পাবলিক হেলথ রিসার্চ-এ প্রকাশিত হয়েছে বলে জানিয়েছে মুসলিম ইঙ্ক নামে একটি সাময়িকী।

এর প্রতিবেদনে বলা হয়- হযরত আয়েশা সিদ্দিকা (রা.) হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, কালোজিরা হলো সর্বরোগ থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার ওষুধ। শুধু বিষ ছাড়া। আয়েশা (রা.) জিজ্ঞেস করেন, বিষ কী? রাসূল (সা.) বলেছেন, মৃত্যু। (সহীহ বুখারি-৫৩৬৩)

গবেষকরা জানিয়েছেন, করোনা আক্রান্ত রোগীকে দুই গ্রাম কালোজিরা, এক গ্রাম চামেলি ফুল, এক চামচ মধু একসঙ্গে ভালোভাবে মিশিয়ে খাওয়াতে হবে। এটি খাওয়ার পর জুস কিংবা একটি কমলা খেতে দেয়া যেতে পারে। তবে লেবু খেলে বেশি ভালো। করোনামুক্ত না হওয়া পর্যন্ত প্রতিদিন এভাবে খেতে হবে।

মহামারি করোনা ভাইরাসে বিশ্বের প্রতিনিয়ত বেড়েই চলছে আক্রান্তের সংখ্যা। সেই সাথে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যাও। এই বৈশ্বিক মহামারি প্রতিরোধে করোনার টিকা বের করার জন্য হন্যে হয়ে কাজ করছেন সারা বিশ্বের গবেষকরা।

এমন পরিস্থিতিতে সৌদি আরবের মদিনার তাইবাহ ইউনিভার্সিটির গবেষকরা দাবি করেছেন, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সফলভাবে চিকিৎসা করেছেন তারা। এজন্য কালোজিরা ব্যবহার করা হয়েছে; যা হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর দেখানো চিকিৎসা পদ্ধতি।

ওই গবেষকদলের গবেষণাপত্র ছাপা হয়েছে মার্কিন জার্নাল ‘পাবলিক হেলথ রিসার্চ’-এ। যা চাইলে যে কেউই দেখতে পারবেন। ওই গবেষকদলের চিকিৎসা পদ্ধতিতে বলা হয়, দুই গ্রাম কালোজিরা, এক গ্রাম চামেলি ফুল এবং এক চা চামচ মধু এক সঙ্গে মিশিয়ে করোনা থেকে সরে ওঠা পর্যন্ত খেতে হবে। এই মিশ্রনটি খাওয়ার পর যে কোনো ফলের জুস কিংবা লেবু অথবা কমলা খাওয়ার জন্য রোগীদের পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

কালোজিরা হলো রাসুল (সা.) এর দেখানো চিকিৎসা উপকরণ। হযরত আয়েশা সিদ্দিকা (রা.) হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, কালোজিরা হলো সর্বরোগ থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার ওষুধ। তবে বিষ ছাড়া। আয়েশা (রা.) জিজ্ঞেস করেছেন, বিষ কী? রাসুল (সা.) বলেছেন, মৃত্যু। (সহীহ বুখারি-৫৩৬৩)
এই গবেষণা দলের প্রধান ডা. সালাহ মোহাম্মেদ এল সায়েদ বলেন, আল্লাহর অনুগ্রহে যারা এ চিকিৎসা নিয়েছেন তারাই সেরে উঠেছেন এবং তারা এটি নিজেদের বাড়িতেই তৈরি করেছেন। এই চিকিৎসা নেয়ার পর রোগীদের সেরে উঠতে এক সপ্তাহের বেশি সময় লাগেনি।

গবেষণাপত্রে উল্লেখ রয়েছে, কালোজিরা ব্যবহারের ফলে মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বেড়ে যায়। টিস্যু সুরক্ষিত থাকে, ফুসফুস ক্ষতিগ্রস্ত হয় না । এছাড়া মধুও ভাইরাস সংক্রমণ থেকে রক্ষা করে। পাশপাশি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়ায়। পাশাপাশি চামেলি ফুলের নির্যাস শরীরের তাপমাত্রা কমাতে জাদুকরি কাজ করে।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, সারাবিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ৭৮ লাখ ৯৫ হাজার ৮২৩ জন এবং মারা গেছেন ৪ লাখ ৩২ হাজার ৮৮২ জন।