Home / Uncategorized / ব্রেকিং নিউজ ঢাকার যেসব এলাকা রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত

ব্রেকিং নিউজ ঢাকার যেসব এলাকা রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ২৮ টি এলাকা এবং ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ১৭টি এলাকা রেডজোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

করোনা প্রতিরোধে গঠিত কেন্দ্রীয় টেকনিক্যাল কমিটি এই জোন চিহ্নিতকরণের কাজটি করে।

ঢাকা উত্তর সিটির রেড জোন চিহ্নিত এলাকাগুলোর মধ্যে রয়েছে:
মিরপুর, মোহাম্ম’দপুর, কল্যাণপুর, গুলশান, বাড্ডা, ক্যা’ন্টনমেন্ট, মহাখালী, তেজগাঁও, রামপুরা, আফতাবনগর, মগবাজার, এয়ারপোর্ট, বনশ্রী, রাজাবাজার, উত্তরা।

ঢাকা দক্ষিণ সিটির রেড জোন চিহ্নিত এলাকাগুলোর মধ্যে রয়েছে:
যাত্রাবাড়ী, ডেমরা, মুগদা, গেন্ডারিয়া, ধানমন্ডি, জিগাতলা, লালবাগ, বাসাবো, শান্তিনগর, পরিবাগ, পল্টন, আজিমপুর, কলাবাগান, রমনা, সূত্রাপুর, মালিবাগ, কোতোয়ালি, টিকাটুলি, মিটফোর্ড, শাহজাহানপুর, মতিঝিল, ওয়ারী, খিলগাঁও, কদমতলী, সিদ্ধেশ্বরী, লক্ষ্মীবাজার, এলিফ্যান্ট রোড, সেগুনবাগিচা।

এর আগে রোববার (১৪ জুন) দুপুরে ঢাকাসহ দেশের অনেক স্থানে রেড জোন ঘোষণা করে লকডাউন করা হবে বলে জানিয়েছেন জন প্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। এ বি’ষয়ে আজই (১৪ জুন) প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে বলেও নিশ্চিত করেন তিনি।

তিনি জানান, আগামীকাল থেকে এসব বাস্তবায়ন হবে।

তিনি আরো জানান, সারাদেশকে মূলত তিনটি প্রধান জোনে ভাগ করা হবে। শুধু লকডাউন এলাকায় সাধারণ ছুটি থাকবে।

ক’রোনা পরিস্থিতিতে টানা দুই মাসেরও বেশি সময় বন্ধ থাকার পর সীমিত পরিসরে অফিস খুলে গত ৩১ মে। যেখানে অ’সুস্থ, বয়স্কজন ও প্রসূতি কর্মীদের জন্য বাড়িতে অবস্থানের সুযোগসহ রাখা হয় বেশি কিছু স্বাস্থ্যবিধি মেনে অফিস করার বিধি-নি’ষেধ।

জনপ্রশাসন ম’ন্ত্রণালয় ঘোষিত ওই প্রজ্ঞাপনের সময়সীমা বেঁ’ধে দেয়া হয় আগামী ১৫ জুন পর্যন্ত। তবে নতুন প্রজ্ঞাপন না আসা পর্যন্ত পূর্বের নিয়মই বহাল থাকবে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী। শনিবার রাতে সময় সংবাদকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এই সি’দ্ধান্তের কথা জানান তিনি।
বাজেট পাসের আগে মোবাইল ফোনে কথা বলায় ও ইন্টারনেটে বাড়তি শুল্ক কেন আরোপ করা হয়েছে, তা জানতে চেয়ে মোবাইল অপারেটরদের কড়া ভাষায় ই-মেইল পাঠিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়’ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। বিটিআরসির জ্যেষ্ঠ সহকারী পরিচালক মোহাম্ম’দ ফারহান আলম শনিবার (১৩ জুন) অপারেটরগুলোকে এই ই-মেইল পাঠান বলে জানা গেছে।

বিটিআরসি অপারেটরদের বলেছে, বাজেটে যে সম্পূরক শুল্ক বাড়ানো হয়েছে, তা ইতোমধ্যেই আরোপ করা শুরু করেছে অপারেটরেরা। বি’ষয়টি বিটিআরসির নজরে এসেছে। এটা প্রমাণিত হলে নজিরবিহীন ক’ঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ই-মেইলে ক’ঠোর শা’স্তির কথাও বলেছে বিটিআরসি। এর মধ্যে রয়েছে সব ধরনের অনাপত্তিপত্র (এনওসি) দেওয়া বন্ধ এবং সব সেবা ও ট্যারিফ অনুমোদন বন্ধ করে দেওয়া।

ই-মেইলে বিটিআরসি আরও বলেছে, বাজেটে মোবাইল সেবার ও’পর যে সম্পূরক শুল্ক বাড়ানো হয়েছে, তা ১ জুলাই থেকে কার্যকর হওয়ার কথা। অবশ্য জাতীয় সং’সদে যেদিন বাজেট ঘোষণা হয়, সেদিন থেকেই নতুন শুল্ক কার্যকর হয়।

অর্থবিলের ৮৮ পাতায় কোন কোন দফা অবিলম্বে কার্যকর হবে, তাও উল্লেখ করে দেওয়া হয়েছে। এর আওতায় ৮০ নম্বর দফার অন্তর্ভুক্ত মোবাইল ফোন সেবা। উল্লেখ্য,

নতুন করহারে মোবাইল ফোন সেবার ও’পর মূল্য সংযোজন কর (মূসক বা ভ্যাট) ১৫ শতাংশ, সম্পূরক শুল্ক ১৫ শতাংশ ও সারচার্জ ১ শতাংশ। ফলে মোট করভার দাঁড়িয়েছে ৩৩ দশমিক ৫৭ শতাংশ। অর্থাৎ প্রতি ১০০ টাকা রিচার্জে স’রকারের কাছে কর হিসেবে যাবে ২৫ টাকার কিছু বেশি, এতদিন যা ২২ টাকার মতো ছিল।

Check Also

মন্ত্রীসভায় রদবদল,সবাইকে অবাক করে যারা হচ্ছেন নতুন মন্ত্রী

প্রাণঘা’তী করো’না ভাই’রাস ম’হামা’রির মধ্যেই মন্ত্রিসভায় নতুন মুখ অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে। চলতি বাজেট অধিবেশন শেষে যেকোনো …