Home / Diet and Exercise / মাত্র ২ মিনিটেই আ’নন্দ চ’রম সুখ দেওয়ার উপায়

মাত্র ২ মিনিটেই আ’নন্দ চ’রম সুখ দেওয়ার উপায়

একজন না’রীর জন্য চ’রম বির’ক্ত কারণ হচ্ছে স’হবা’সে তার তৃ’প্ত না হওয়া। অনেক পু’রুষই তার আ’নন্দ চ’রম সুখ দেওয়ার পূর্বেই তার বী’র্যপাত হয়ে যায়।

যার কারণে তার স্ত্রী অপূর্ণ তৃ’প্তি বোধ থেকে যায়। যার কারণে তাদের মেজাজ বিগড়ে যায়। তাই স্বা’মীর সাথে অনেক সময় ভালো আচরণ করতে পারে না। যার ফলে সংসারে অশান্তি নেমে আসে। স্ত্রীরও পরপরুষের প্রতি আ’কৃষ্ট হয়। তাই পরপু’রুষকেই দিয়েই নিজেকে পরিতৃ’প্ত করতে চাই।

তাই প্রত্যেক স্বা’মীরও উচিত নিজের আ’নন্দ চ’রম সুখ দেওয়া। অনেক পু’রুষই প’র্যাপ্ত যৌ’ন জ্ঞানের অভাবে আ’নন্দ চ’রম সুখ দিতে পারেন না। আজকের পোস্ট এ পড়ুন কীভাবে না’রীকে দ্রুত অধিক তৃ’প্তি দেওয়া যাবে নিজের যৌ’ন দূর্বলতা থাকার পরও।নিচে আপনার ডক্টরের পক্ষ থেকে টিসগুলো দেওয়া হল:

* স্পর্শকাতর স্থানে যেমন গাল, ঠোঁট, কান, গ’লায় ঘন ঘন চুম্বন করুন। আপনার নিঃশ্বাসের শব্দ যেন তাঁর কানে শোনা যায়।
* আপনার স’ঙ্গিনীর উরুতে ঘর্ষণ করুন।

* স’ঙ্গমের পূর্বে ফোরপ্লে এবং স্পর্শকাতর অঙ্গে ও যৌ’নাঙ্গে কামাদ্রিভাবে আলতোভাবে আদর করুন।
* যৌ’নাঙ্গে মর্দনের ফলে না’রী দ্রুত উ’ত্তেজিত হয়।
* না’রীর দেহের স্পর্শকাতর অঙ্গগু’লি মর্দন করুন।
* যো’নিতে আঙ্গুল প্রবেশ করিয়ে ঘর্ষণ করুণ।
* যো’নিতে দুই ঠোঁটে আঙ্গুল দিয়ে ঘর্ষণ করুণ।

মিল’নে মহিলারা সন্তুষ্ট নন তিনটি কারণে!
তাঁরা মুখে কিছু বলেন না। যৌ’নতার বিষয় অনেক কিছুই অব্যক্ত রেখে দেন নিজের মনে। কারণ, একটাই। ছোটো থেকে আমাদের সমাজ শিখিয়েছে, যৌ’নতা নিয়ে সব কিছু করো, কিন্তু আলোচনা কোরো না। ফলে, মনের মধ্যে কিছু প্রশ্ন অব্যক্তই থেকে যায়। যার কারণে আজও স্বামী-স্ত্রী মিলিত হলেও তাঁরা মি’লন নিয়ে আলোচনা করেন না। তাঁদের কার কী পছন্দ, তাঁরা হয়তো নিজেই জেনে উঠতে পারেন না জীবনভর। মহিলাদের যৌ’ন পছন্দের জায়গা তো একেবারেই অধরা থেকে যায়। স্বামীর পছন্দ-অপছন্দের যদিও বা আভাস মেলে, স্ত্রীর বিষয়ে একেবারেই ভাবলেষহীন আচরণ লক্ষ্য করা যায়। তবে সে’ক্সোলজিস্টরা বলেন, মহিলাদের যৌ’ন অসন্তুষ্টির ৩টি প্রাথমিক কারণ আছে। জেনে নিন। তা হলে হয়তো, স্ত্রী/প্রেমিকার মন বুঝতে সুবিধে হবে –

স্ত্রী/প্রেমিকার সঙ্গে আলোচনা না করা
আগেই বলেছি, আজও আমাদের সমাজে যৌ’নতা নিয়ে তেমন আলোচনা হয় না। এই ট্যাবু থেকে বেরিয়ে আসার সময় এসেছে। স্ত্রী/প্রেমিকার ভালোলাগা-মন্দলাগা নিয়ে তাঁর সঙ্গে আলোচনা করুন। তার মতামতকেও প্রাধান্য দিন। মাঝেমধ্যে তাঁর ভালোলাগাকেও আমল দিন।
স্ত্রী/প্রেমিকাকে সময় না দেওয়া
আপনি পুরুষ। কথাতেই আছে, পুরুষদের আবেগ থাকে কম। অন্তত প্রেমের ক্ষেত্রে মহিলাদের চেয়ে অনেক কম। মহিলারা অনেক বেশি ইমোশনাল। ফলে সেই ইমোশনে ঘাটতি দেখা দিলে তার কোপ পড়তেই পারে আপনাদের সে’ক্স লাইফে। তাই ব্যস্ত সময়ের মধ্যেও স্ত্রী/প্রেমিকাকে সময় দিতে চেষ্টা করুন। সিনেমায় নিয়ে যান। বাইরে ডিনার করুন। না হলে বাড়িতেই একসঙ্গে সময় কাটান।

বোরিং সে’ক্স লাইফ
প্রত্যেকদিন ডাল-ভাত খেতে ভালো নাও লাগতে পারে আপনার স্ত্রী/প্রেমিকার। একদিন তিনি চাইতেই পারেন বিরিয়ানি, চিকেন চাপ, হটডগ, কিংবা ললিপপ। তাই সেই মুহূর্তে স্ত্রী/প্রেমিকার চাহিদা বোঝার চেষ্টা করুন। একঘেয়ে ব্যাপার না করে ইন্টারেস্টিং কিছু করুন।

Check Also

যে ২৪টি যৌ’ন আকাঙ্ক্ষা মেয়েদের রয়েছে, যা অনেক পুরুষরা এখনো জানে না!

যে ২৪টি যৌ’ন আকাঙ্ক্ষা মেয়েদের রয়েছে, অনেকসব প্রেমের অবশ্যম্ভাবী পরিণতি হয়ে থাকে শারীরিক ঘনিষ্ঠতা বা …