Home / Home Remedies / যে গ্রামের মেয়েদের কেউ বিয়ে করতে চায় না

যে গ্রামের মেয়েদের কেউ বিয়ে করতে চায় না

নিশ্চয়ই এর আগে আপনি এমন কোনো গ্রাম দেখেননি, যে গ্রামের মেয়েদের বিয়ে করতে হবে শুনলেই ছেলেরা পালাতে শুরু করে। পাঠক, অনুমান করুন- ছেলেদের এমন আপত্তির কারণ কী হতে পারে?

না। সেই গ্রামের মেয়েরা যথেষ্ট সুন্দরী। গ্রামটিও একেবারে গণ্ডগ্রাম নয়, যোগাযোগ ব্যবস্থা ভালো। গ্রামের মানুষ ভালো-মন্দ মিলিয়ে সমান; এমন সব গ্রামেই দেখা যায়। তারপরও এই গ্রামে ছেলেরা বিয়ে করতে চায় না।

এর কারণ হলো বানরের উৎপাত। কথিত আছে- গ্রামে একটি ডাকাত দল সক্রিয় রয়েছে। তবে তারা কেউ মানুষ নয়, বানর! শুনে আপনার হাসি পেতে পারে। কিন্তু সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে- এ কথা সত্য। ভারতের ভোজপুর জেলার রতনপুর গ্রামের কথা প্রায়ই পত্রিকার পাতায় উঠে আসে এই বানর দলের কারণে।

গ্রামে বাসিন্দাদের তুলনায় বানরের সংখ্যা অনেক বেশি এবং বানরের দল গ্রামবাসীদের সবসময় আতঙ্কের মধ্যে রাখে। যে কোনো অনুষ্ঠান- বিয়ে কিংবা জন্মদিন এমনকি শ্রাদ্ধ অনুষ্ঠানেও বানরের দল হানা দিতে দেরি করে না। খাবার নষ্ট করে। ধাওয়া দিলে দাঁত-মুখ খিচিয়ে উল্টো তেড়ে আসে। তুলকালাম কাণ্ড ঘটায়।

এই অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি এড়াতে পাত্রপক্ষ ওই গ্রামে যেতে চায় না। বানরের আক্রমণের চেয়ে তারা নিরাপদে থাকতেই বেশি পছন্দ করে। যে কারণে যখন রতনপুর গ্রাম থেকে বিয়ের প্রস্তাব আসে, বর এবং তার পরিবার সুস্পষ্ট এই কারণ দেখিয়ে ঘটককে বিদায় করে দেয়। স্থানীয় প্রশাসন বিপর্যয় রোধে যথাসাধ্য চেষ্টা করেছে। কিন্তু বানরের ক্রমবর্ধমান সংখ্যার কারণে তারা সফল হয়নি। বিশেষ করে কোনো আয়োজন উপলক্ষ্যে যখন ভালো-মন্দ খাবার তৈরি করা হয় তখন বানরগুলো হামলা চালায়। অতীতেও এই গ্রামে এভাবে অনেক বিয়ের অনুষ্ঠান ভুণ্ডল হয়ে গেছে।

গেল ১৭ মে ৯ বছরের সংসারের ইতি টানেন ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেতা জিয়াউল হক অপূর্ব এবং নাজিয়া হাসান অদিতি। তাদের বিচ্ছদের খবরের পরেই নতুন করে সামনে এলো বিয়ের খবর। আর এবার তার পাত্রী মেহজাবিন!

পাঠক একটু অবাক হলেন তো শুনে? তাহলে ব্যাপারটা একটু খুলে বলা যাক। অপূর্ব এবং মেহজাবিনের বিয়ে কী আদৌ হবে নাকি রয়েছে সংশয়! কেননা তাদের বিয়ে বাস্তবে নয় বরং ক্যামারের সামনে। ‘বিয়ে’ শিরোনামের একটি নাটকে অভিনয় করেছেন ছোটপর্দা জনপ্রিয় এ জুটি।

একটি বিয়ে গল্পকে ঘিরে তৈরি হয়েছে নাটকটি। সেই গল্পে কি সত্যিই বিয়ে হয় অপূর্ব ও মেহজাবিনের! নাকি ভালোবাসার শেষ পরিণতি হয় কষ্ট পাওয়া! জানা যাবে নাটকটি দেখলেই। নাটকটি পরিচালনা করেছেন জাকারিয়া সৌখিন।
গত (২৯ মে) বাংলাভিশনে সন্ধ্যা ৬টা ৩৫মিনিটে স্বল্প বিরতির নাটক হিসেবে প্রচার হয়েছে এটি।

২০১৭ সালে ‘বড় ছেলে’ নাটকে অভিনয় করে সাড়া ফেলেন অপূর্ব-মেহেজাবিন। এরপর তাদের অভিনীত বেশ কয়েকটি নাটক প্রশংসিত হয়েছে। আবার ঈদের নাটকে দর্শক পাচ্ছেন তাদের।
কেয়ার নিউট্রেশন লিঃ মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানি তে লক্ষ্মীপুরের জন্য কিছু সংখ্যাক দক্ষ “সেলস অফিসার”নিয়োগ দেওয়া হবে।

চাকরির বিবরণঃ
১) প্রতিদিন নির্ধারিত রুটে পন্য বিক্রয় (অর্ডার) গ্রহণ করতে হবে।
২)ডেইলি,সাপ্তাহিক, মাসিক বিক্রিয় লক্ষ্য মাত্রা পূরন করা।
৩) কোম্পানির প্রদত্ত অফার মার্কেটে সঠিকভাবে পৌঁছে দেওয়া।
৪) নতুন নতুন গ্রাহক(দোকান) বৃদ্ধির মাধ্যমে বিক্রয় বৃদ্ধি করা।

পদবীঃ সেলস অফিসার
অভিজ্ঞতাঃ সরাসরি বিক্রয় কাজে (১-২) বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।
শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ SSC/HSC
বেতনঃ ১৪,৪০০/- টাকা
স্থানঃ লক্ষীপুর।
Email : [email protected]

আগ্রহি প্রার্থীগন ইমেইলে সিভি(জীবন বৃত্তান্ত) পাঠান। কর্তৃপক্ষ যোগাযোগ করে।

Check Also

সব জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে যে হচ্ছেন শেখ হাসিনার পরে আওয়ামী লীগের নতুন সভাপতি

আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী এলেই প্রথম যে প্রশ্নটি সামনে আসে তা হলো শেখ হাসিনার পর কে? …