Home / এক্সক্লুসিভ / ৩ ঘণ্টার চেষ্টায় বের হলো দেড় বছর পেটে থাকা সেই ‘কাঁচি’

৩ ঘণ্টার চেষ্টায় বের হলো দেড় বছর পেটে থাকা সেই ‘কাঁচি’

ডাক্তারের অবহেলায় অপারেশনের পর পেটে কাঁচি নিয়ে দেড় বছর নিদারুণ দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছিল মনিরা খাতুনকে। অবশেষে আবারো অপারেশন করে কাঁচিটি বের করা হয়েছে।

ভুক্তভোগী মনিরা খাতুন গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার ঝুটি গ্রামের খায়রুল মিয়ার মেয়ে। শনিবার বেলা ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. রতন কুমার সাহার নেতৃত্বে কয়েকজন ডাক্তার কাঁচিটি বের করতে সক্ষম হন।

ডা. রতন কুমার সাহা বলেন, আমরা তিন ঘণ্টা চেষ্টার পর অপারেশন করে কাঁচিটি বের করতে সক্ষম হই। মনিরা অজ্ঞান রয়েছে তাই সুস্থ না হওয়া পর্যন্ত কিছু বলা যাচ্ছে না।

তিনি আরো বলেন, দীর্ঘদিন পেটের ভেতর কাঁচি থাকায় তার পেটের নাড়ির কিছু অংশ পচন ধরেছিল। সেগুলো কেটে ফেলতে হয়েছে। প্রয়োজনে কৃত্রিম নাড়ি লাগানো হতে পারে।

উল্লেখ্য, মনিরা খাতুন ২০২০ সালের ৩ মার্চ পেটে টিউমার নিয়ে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হন। ভর্তির সাতদিন পর তার অপারেশন করা হয়। অপারেশনের সময় মনিরার পেটে কাঁচি রেখেই সেলাই করেন ডাক্তার। ঘটনাটি ছড়িয়ে পড়লে ‘পেটে দেড় বছর ধরে কাঁচি’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করে ডেইলি বাংলাদেশ। এর পর পরই টনক নড়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের।

Check Also

ভাবিকে বিয়ে করা কি জায়েজ?

দাম্পত্য সম্পর্কের গুরুত্ব বোঝাতে পবিত্র কোরআনে আল্লাহ রাব্বুল আলামীন ইরশাদ করেছেন, স্ত্রীরা তোমাদের ভূষণ এবং …