Home / এক্সক্লুসিভ / স্বা’মী বাসায় না থাকলেই সহকারী শিক্ষিকার বাসায় যেতেন প্রধান শিক্ষক!!

স্বা’মী বাসায় না থাকলেই সহকারী শিক্ষিকার বাসায় যেতেন প্রধান শিক্ষক!!

শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজে’লার ২০নং পূর্ব গৈড্যা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিমের বি,রুদ্ধে একই উপজে’লার এক সহ,কারী শি,ক্ষিকাকে বিয়ের প্রলোভনে একাধিকবার ধ,র্ষণের অভি,যোগ উঠেছে।

এ ঘ’টনায় বৃহস্পতিবার (৫ মা’র্চ) স্থা’য়ী সমাধান চেয়ে জে’লা প্রা,থমিক শিক্ষা অফিসার বরাবর একটি অ,ভিযোগ ক’রেছেন ওই শিক্ষিকা।এলাকাবাসী ও অ,ভিযোগ সূত্রে জা’না যায়, উপজে’লার ১১নং পশ্চিম রামভদ্রপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা চাকরির সুবাদে ২০১৬ সাল থেকে ভেদরগঞ্জ পৌরসভার গৈড্যা এলাকায় এক ছেলে-এক মেয়ে নিয়ে ভাড়া বাসায় থাকতেন।বাসার কাছে হওয়ায় ছেলেকে ২০নং পূর্ব গৈ,ড্যা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভর্তি করেন তিনি।

২০১৯ সালে ছেলের প্রাথমিক শিক্ষা স,মাপনী পরীক্ষার সময় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর র,হিমের স’ঙ্গে পরিচয় হয় ওই শিক্ষিকার।পরে মোবাইল ফোনে কথা বলতে বলতে তাদের মধ্যে প,রকীয়া প্রে,মের স’স্পর্ক গড়ে ওঠে।

স’স্পর্ক হওয়ার পর শিক্ষিকার স্বামী বাসায় না থাকলে তার বাসায় যেতেন আব্দুর রহিম।শিক্ষিকার ইচ্ছার বি,রুদ্ধে বিয়ের প্র,লোভন দেখিয়ে একাধিকবার দৈ,হিক সম্প,র্কও ক’রেছেন আব্দুর রহিম।

২০১৯ সালের ২০ ডিসেম্বর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে এলাকাবাসী প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিম এবং ওই শি,ক্ষিকাকে আ,পত্তিকর অব’স্থায় ধ’রে ফে’লে । বিষয়টি শিক্ষিকার ভাড়া বাসার লোকজন, স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন যেনে যায় এবং ঝ,গড়ার সৃ,ষ্টি হয়।

স,র্বশেষ আব্দুর রহিম স্বা,মীকে তা,লাক দেয়া শ,র্তে তাকে বি,য়ের প্রস্তাব দেন। পরে স্বা,মীকে তালাক দেন ওই শি,ক্ষকা।কিন্তু আব্দুর রহিম তাকে বিয়ে করবে বলে সময় নিয়ে তালবাহানা করছেন।

তাই বৃহস্পতিবার (৫ মা’র্চ) আব্দুর রহিমের বি’রুদ্ধে জে’লা প্রাথমিক শিক্ষা অ,ফিসার বরাবর একটি অ,ভিযোগ ক’রেছেন শি.ক্ষিকা।নাম প্র’কাশ্যে অ,নিচ্ছুক গৈড্যা এলাকার কয়েকজন জা’নান,

প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিম ও শিক্ষিকার মধ্যে প,রকীয়া প্রেমের স,ম্পর্ক রয়েছে। গত ২০ ডিসেম্বর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে শিক্ষিকার বাসায় তাদের আ,পত্তিকর অ,বস্থায় ধ’রা হয়।

এলাকাবাসী প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিমকে ৩০ হাজার টাকা জ,রিমানা করে। সহকারী শিক্ষিকার এক ছেলে, এক মেয়ে এবং প্রধান শিক্ষকের দুই ছেলে। তাদের দৃ,ষ্টান্তমূ,লক শা,স্তি

হওয়া প্রয়োজন।ওই শিক্ষিকা বলেন, আব্দুর রহিমের জন্য স্বামী ও শ্ব,শুরবাড়ির লোকজনের স’ঙ্গে ঝ,গড়া করেছি। তার কারণে স্বা,মীকে তা,লাক দিয়েছি। তিনি বিয়ে করবেন বলে সময় নিয়ে এখন তা,লবাহানা করছেন। আমা’র স’ঙ্গে যোগাযোগ ব,ন্ধ করে দিয়েছেন।

তাই এর সমাধান চেয়ে জে’লা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার বরাবর একটি অ,ভিযোগ করেছি। এদিকে প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিম বলেন, ওই শিক্ষিকা খা,রাপ চ,রিত্রের নারী। বিভিন্ন পু,রুষের স’ঙ্গে তার স,ম্পর্ক। আমা’র বি,রুদ্ধে মি,থ্যা অ,ভিযোগ করেছে ওই শি,ক্ষিকা।

এটা ষ,ড়য,ন্ত্র।জে’লা প্রাথমিক শিক্ষা অ,ফিসার আবুল কালাম আজাদ বলেন, ওই শিক্ষিকা ২০নং পূর্ব গৈড্যা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিমের

বি,রুদ্ধে একটি অ,ভিযোগ করেছে। এ ঘ’টনায় বৃহস্পতিবার দুই সদস্য বিশিষ্ট একটি ত,দন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। গোসাইরহাট উপজে’লা সহকারী শিক্ষা অফিসার আব্দুল কুদ্দুস হাওলাদার ও

নড়িয়া উপজে’লা সহকারী শিক্ষা অফিসার আ,নোয়ার হোসেনকে তদ’ন্ত কমিটির দা,য়িত্ব দেয়া হয়েছে। তারা এক স,প্তাহের মধ্যে রি,পোর্ট দেবেন। অভি,যোগের স,ত্যতা পেলে নিয়ম অ,নুযায়ী ব্যব’স্থা গ্রহণ করা হবে।

Check Also

ভাবিকে বিয়ে করা কি জায়েজ?

দাম্পত্য সম্পর্কের গুরুত্ব বোঝাতে পবিত্র কোরআনে আল্লাহ রাব্বুল আলামীন ইরশাদ করেছেন, স্ত্রীরা তোমাদের ভূষণ এবং …