Home / সারাদেশ / রিমান্ড আবেদনে মিলল ঢাবি শিক্ষার্থী মেঘলাকে নির্যাতনের ভয়াবহ চিত্র

রিমান্ড আবেদনে মিলল ঢাবি শিক্ষার্থী মেঘলাকে নির্যাতনের ভয়াবহ চিত্র

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থী এলমা চৌধুরী মেঘলাকে হ'ত্যার অভিযোগে বনানী থানায় করা মামলায় তার স্বামী ইফতেখার আবেদীনের (৩৬) তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বুধবার ঢাকা মহানগর হাকিম আশেক ইমামের আদালত শুনানি শেষে এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে আসামির রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সালাউদ্দিন মোল্লা। তিনি আবেদনে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর শরীরে জখমের চিহ্ন রয়েছে বলে উল্লেখ করেন।

তিনি রিমান্ড আবেদনে বলেন, চলতি বছরের ২ এপ্রিল ইফতেখার আবেদীনের সঙ্গে ঢাবির নৃত্যকলা বিভাগের ২০১৫-১৬ সেশনের শিক্ষার্থী এলমা চৌধুরী মেঘলার বিয়ে হয়। বিয়ের পর আসামি ইফতেখারের বাবা ভুক্তভোগী মেঘলাকে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়া বন্ধ করতে বলেন। তবে ভুক্তভোগী মেঘলা পড়া বন্ধ করতে না চাইলে আসামি ইফতেখার ও তার বাবা-মা মিলে মেঘলাকে শারীরিক নির্যাতনের পর মাথার চুল কেটে দেওয়া হয়। এছাড়া সাংসারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিভিন্ন সময় মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করা হয় তাকে।

বিয়ের আনুমানিক তিন মাস পর মেঘলাকে বনানীস্থ বাসায় রেখে আসামি ইফতেখার কানাডার চলে যায়। গত ১১ডিসেম্বর কানাডা থেকে দেশে ফিরে আসে। এরপর ১৪ ডিসেম্বর আনুমানিক বেলা সাড়ে তিনটার দিকে ভুক্তভোগী মেঘলার মাকে মোবাইলে আসামি ইফতেখার ফোন করে জানায়, আপনার মেয়ে গুরুতর অসুস্থ, তাকে চিকিৎসার জন্য শুলশানের ইউনাইটেড হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছি, আপনারা আসেন।’ এরপর ভুক্তভোগীর বাবা-মা হাসপাতালে গিয়ে মেঘলার মরদেহ দেখতে পান।

রিমান্ড আবেদনে তদন্ত কর্মকর্তা তার পর্যালোচনায় আরো উল্লেখ করেন, ভুক্তভোগী মেঘলার নাকে কালচে দাগ, উপরের ঠোটে কালচে দাগ, বাম কানে কাটা চিহ্ন, ঘাড়ে লম্বালম্বি দাগ, গলার উপরিভাগে থুতনিতে কালচে জখম, পিঠের ডান পাশে কালচে দাগ, পিঠের ডান পাশে র'ক্ত জমাট ও ফুলা, ডান ও বাম হাতের বিভিন্ন জায়গায় কালো জখমের দাগ, বাম হাতের আঙ্গুলে কাটাছেঁড়া, দুই পায়ের হাটুর নিচে কালচে জখম, ছপছপ দাগ, বাম পায়ের বুড়ো আঙ্গুলে জখম দেখা যায়।

তদন্ত কর্মকর্তা আবেদনে বলেন, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে পরিকল্পিতভাবে ভুক্তভোগী মেঘলাকে মারধর করে হ'ত্যা করেছে। আসামি ইফতেখারকে গ্রেফতারের পর ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে এ ঘটনার সঙ্গে আসামির জড়িত থাকার তথ্য প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে। মামলার সুষ্ঠ তদন্তসহ ন্যায়-বিচারের স্বার্থে উক্ত আসামির প্রকৃত নাম-ঠিকানা উদঘাটনে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তার সাতদিনের পুলিশ রিমান্ডের আবেদন মঞ্জুর করা প্রয়োজন।

এদিকে আসামিপক্ষে তার আইনজীবী রিমান্ড বাতিল ও জামিন চেয়ে শুনানি করেন। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষ জামিনের বিরোধিতা করেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত তার তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার ইলমা চৌধুরী ওরফে মেঘলার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাতে ইলমার বাবা সাইফুল ইসলাম চৌধুরী বাদী হয়ে বনানী থানায় হ'ত্যা মামলা করেন। মামলায় ইলমার স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়িকে আসামি করা হয়েছে।

Check Also

চলে গেলেন আঞ্চলিক অভিনয়ের প্রাণ পুরুষ ‘ভাদাইমা’

টাঙ্গাইলের জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতা আসান আলী ‘ভাদাইমা’ মারা গেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। …