Home / এক্সক্লুসিভ / যেসব অবহেলায় বাড়ছে হৃদরোগের ঝুঁকি

যেসব অবহেলায় বাড়ছে হৃদরোগের ঝুঁকি

সুস্থতা সবারই কাম্য। কিন্তু মানসিক চাপ থেকে অতিরিক্ত কর্ম ব্যস্ততা, অনেক রোগ বয়ে আনে। আবার অনেক ক্ষেত্রেই দৈনন্দিন যাপনের মধ্যেই নিহিত থাকে কিছু রোগ। যার মধ্যে হৃদরোগ অন্যতম। অনিয়ন্ত্রিত ধূমপান, অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভাস অনেক ক্ষেত্রেই ডেকে আনে হৃদযন্ত্রের সমস্যা।

সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, প্রতি বছর পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশি মানুষ প্রাণ হারান হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে।

আমাদের দৈনন্দিন কিছু ভুলের কারণে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বাড়ছে। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক কোন কোন অভ্যাস বাড়িয়ে দিতে পারে হৃদরোগের ঝুঁকি-

>> পর্যাপ্ত ঘুমের অভাব হৃদরোগের অন্যতম বড় অনুঘটক। শরীরকে সুস্থ রাখতে দৈনিক ছয় থেকে আট ঘণ্টা ঘুম অবশ্যই প্রয়োজন। সচেতন ভাবে উপলব্ধি করতে না পারলেও প্রাত্যহিক ক্লান্তির থেকে শরীরকে সতেজ করতে পর্যাপ্ত ঘুমের বিকল্প নেই।

>> ডায়াবেটিস, উচ্চ র'ক্তচাপ, অতিরিক্ত ট্রাইগ্লিসারাইড এবং বাড়তি ওজনের মতো সমস্যাগুলো হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয় অনেক গুণ। কিন্তু এই সমস্যাগুলোর জন্য অনেকেই নিজের ইচ্ছে মতো ওষুধ খান। মনে রাখা দরকার চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ খাওয়া বা ওষুধ বন্ধ করা, দুই-ই ডেকে আনতে পারে বড় বিপদ।

>> অনেকেই সুস্থ থাকতে শরীরচর্চা করেন নিয়মিত। কিন্তু অতিরিক্ত বা অনিয়ন্ত্রিত শরীরচর্চাও ভালো নয় শরীরের জন্য। কোভিড বা অন্য কোনো রোগ থেকে সুস্থ হওয়ার পর শরীরচর্চা শুরু করার আগে পরামর্শ নিন বিশেষজ্ঞদের। আচমকা চাপে যেন অপ্রস্তুত না হয় শরীর। অপরিকল্পিত শরীরচর্চায় হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার বেশ কিছু ঘটনাও শোনা যাচ্ছে ইদানিং।

>> হৃদযন্ত্রের নিয়মিত পরীক্ষা-নিরীক্ষায় অনেক ক্ষেত্রেই ঠেকানো যেতে পারে হৃদরোগ। কিন্তু বুকে ব্যথা বা শারীরিক অস্বস্তির মতো লক্ষণগুলোকে গ্যাসের সমস্যা বলে এড়িয়ে যাওয়া নতুন কিছু নয়। তবে সঠিক সময়ে ধরা পড়লে অনেক ক্ষেত্রেই ঝুঁকি কমে হৃদরোগের। বিশেষত পরিবারে যদি হৃদরোগের ইতিহাস থাকে তাহলে নিয়মিত হৃদযন্ত্র ও সংবহনতন্ত্রের পরীক্ষা অবশ্যই দরকার।

Check Also

জনি সিন্সকে গো’পনা’ঙ্গের ছবি পাঠান বাংলাদেশিরাও, জানালেন প’র্ন তারকা নিজেই

ভারতীয়দের গোপনাঙ্গের ছবি পেতে পেতে ক্লান্ত পর্ন তারকা জনি সিন্স! এমনকি এই তালিকায় বাংলাদেশি ও …