Home / এক্সক্লুসিভ / মসজিদের মাসিক চাঁদা না দেওয়ায় কবরস্থানে জায়গা হয়নি মৃ’ত যুবকের!

মসজিদের মাসিক চাঁদা না দেওয়ায় কবরস্থানে জায়গা হয়নি মৃ’ত যুবকের!

বান্দরবানের লামায় মসজিদ পরিচালনা কমিটির বকেয়া চাঁদা আদায় না করায় মৃত এক যুবককে সামাজিক কবরস্থানে দাফন করতে দেয়নি কমিটির সভাপতি ও সর্দার। বুধবার (০৭ জুলাই) উপজেলার ইয়াংছা ইউপির বধুঝিরি গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ইয়াংছা বধুঝিরি ৭নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মো. ইরফান (৩০) মঙ্গলবার রাতে কক্সবাজার সদর হাসপাতলে ইন্তেকাল করেন। আত্মীয় স্বজনরা কাফন দাফনের প্রস্তুতি নিলে মসজিদ কমিটির বকেয়া টাকা আদায় না করাকে কেন্দ্র করে সামাজিক কবরস্থানে দাফন, মসজিদের খাটিয়া ব্যবহার ও মাঠে জানাযা পড়তে দেওয়া হয়নি।

এমনকি মহল্লার ইমামকে জানাযার ইমামতিও করতে নিষেধ করে দেয় মহল্লার সর্দার ও মসজিদ কমিটির সভাপতি মো. আক্কাস। পরে অন্য মসজিদের ইমাম ও খাটিয়া এনে যানবাহন চলাচলের সড়কে জানাযার নামাজ আদায় করে সড়কের পাশেই অস্থায়ী কবরস্থানে মৃত ব্যক্তির দাফন সম্পন্ন করা হয়।

মৃত ইরফানের নিকটাত্মীয় মো. নূরুল ইসলাম বাপ্পি (৩৪) জানান, মো. ইরফান (৩৫) এর মৃত্যুর বিষয়টি জানাতে আমরা ৭/৮জন এলাকার লোক সর্দারের বাসায় যাই। কিন্তু সর্দার ঘুমের বাহানা দিয়ে আমাদের ডাকে সাড়া দেয়নি। মাইকে এলান করতে গিয়েও বাধাপ্রাপ্ত হই আমরা। সভাপতি এলাকায় না থাকায় ফোনে যোগাযোগ করলে সব বিষয়ে বাধাপ্রদান করেন তিনি।

এদিকে বিষয়টি ইয়াংছা আর্মি ক্যাম্প কর্তৃপক্ষকে জানালে তারা বিষয়টি সমাধান করে দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছে বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী।
তবে খবর পাওয়ামাত্র ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে সমন্বয়ক পরামর্শক্রমে প্রাথমিক সমাধান দেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন ওয়ার্ড মেম্বার মো. কামাল উদ্দীন। ব্যাপকভাবে আগামী জুমার নামাজের পর সামাজিকভাবে বসার কথাও জানান তিনি।

মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. আক্কাসের মুঠোফোন বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

Check Also

লিপস্টিক ব্যবহারে ভয়ংকর ক্ষতি

নারীদের সাজের প্রধান অনুষঙ্গ হচ্ছে লিপস্টিক। পোশাকের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে নারীরা তাদের ঠোঁট রাঙিয়ে থাকেন। …