Home / এক্সক্লুসিভ / খেজুরের কাঁচা রস পান করা বিপজ্জনক

খেজুরের কাঁচা রস পান করা বিপজ্জনক

গ্রাম কিংবা শহরে; ঝেঁকে বসেছে শীত। পিঠাপুলি খাওয়ার পাশাপাশি এই ঋতুতে ধুম পড়ে খেজুরের রস খাওয়ার। তবে গত কয়েক বছর ধরে নিপাহ ভাইরাসের সংক্রমণ দেখা দেওয়ায় কাঁচা রস খাওয়ায় ঝুঁকি তৈরি হয়েছে।

শীতে কাঁচা খেজুরের রস থেকে নিপাহ ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা প্রকাশ করছেন জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তারা।

তারা বলেছেন, নিপাহ মরণব্যাধি। তাই সতর্কতা ও সচেতনতাই এই রোগ প্রতিরোধের একমাত্র উপায়। নিপাহ ভাইরাসের ঝুঁকি এড়াতে খেজুরের রস ফুটিয়ে পান করার পরামর্শ দিয়েছেন সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরা।

মূলত ফলাহারি বাদুড় এই ভাইরাসের প্রধান বাহক। তবে ফলাহারি বাদুড় নিজে ঐ ভাইরাসে আক্রান্ত হয় না। আমাদের দেশে নিপাহে আক্রান্ত হওয়ার মূল উত্স খেজুরের রস। খেজুরের রস গাছের মধ্যে হাঁড়িতে সংরক্ষণের সময় বাদুড় ঐ রস পান করলে এবং পরে রসের মধ্যে তার লালা বা প্রসাব থেকে রস সংক্রামিত হয়। ঐ রস পান করলে মানুষ নিপাহ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়। বাদুড়ে খাওয়া থেকে খেজুরের রসকে রক্ষা করা গেলে নিপাহ হবে না। বাদুড়ে খাওয়া ফল থেকেও নিপাহে আক্রান্ত হতে পারে।

জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. তাহমিনা শিরিন বলেন, নিপাহ ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার বেশি ঘটনা ঘটে জানুয়ারি থেকে মার্চে। তাই আমরা ধরেই নেই খেজুরের রস যেহেতু ডিসেম্বর থেকে মার্চ পর্যন্ত পাওয়া যায়, সেখান থেকে নিপাহে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকে। তিনি বলেন, তাই এ সময়ে খেজুরের রস বেশি ঝুঁকিপূর্ণ। এজন্য কাঁচা খেজুর রসের পরিবর্তে জ্বাল দিয়ে রস খাওয়াটাকেই উত্সাহিত করতে হবে।

Check Also

‘শারীরিক চাহিদা’ মেটাতে না পারায় স্বামীকে খু”ন!

মাত্র দেড় মাস আগে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরের আগনুকালি গ্রামের মৃত আবুসামার ছেলে শরিফুল (২৫) বিয়ে করেছিলেন …