Home / এক্সক্লুসিভ / কেন বয়সে বড় নারীদের প্রেমে পাগল হয়ে ওঠেন যুবকরা? কারণ জানলে অবাক হবেন

কেন বয়সে বড় নারীদের প্রেমে পাগল হয়ে ওঠেন যুবকরা? কারণ জানলে অবাক হবেন

প্রেম তো আর জানিয়ে আসে না। প্রেমে আসে ঝোড়ো হাওয়ার মতো। বুঝে ওঠার আগেই দেখি যে, আমরা হয়তো কাউকে মন দিয়েছি! তা কোনো সমস্যার বিষয় নয়। কিন্তু সমস্যা হয় তখনই, যখন কোনো অসম বয়সের সম্পর্ক দেখি আমরা।

সমাজের সবাই সেই যুগলের দিকে বাঁকা চোখে তাকাতে শুরু করেন। যেন নিজের থেকে বয়সে বড় কাউকে ভালোবেসে ভুল করে ফেলেছেন কোনো পু'রুষ! কিংবা নিজের থেকে বয়সে ছোট কোনো পু'রুষের সঙ্গে প্রেম করাই নাকি যায় না। এমন করে বিষয়টা দেখা হয়, যেন তা ঘোর অপরাধ! যদিও তা নয়। কারণ সব ধরনের সম্পর্কই সুন্দর যদি উভয়পক্ষের সেই সম্পর্কে মনোযোগ থাকে। যদি দুজন মানুষ একে অপরের সঙ্গে ভালো থাকেন, তাহলে আর কিছু ভাবার থাকে না। কিন্তু কেন বয়সে বড় নারীর প্রেমে পড়েন অল্পবয়সী তরুণরা তা কি জানেন? এর কারণগুলো হলো:

ম্যাচিওরিটি: অল্পবয়সী তরুণীদের মধ্যে একটু হলেও চঞ্চলতা আর অস্থিরতা থেকে যায়। তাদের বয়স অল্প হওয়ার কারণে অনেক সময়ে তারা অনেক সিদ্ধান্ত নিতে ভুল করে ফেলেন। ম্যাচিওরিটি কম থাকে তাদের মধ্যে। এই কথাই মনে করেন অনেক যুবক। তাই সম্পর্কে কোনো ছোট সমস্যা হলেও তা বড় আকার নিতে পারে। অভিজ্ঞতা না থাকার কারণে, ঠিকভাবে সেই সমস্যা সমাধান করতে পারেন না। তবে একটু বয়স্ক নারীদের ক্ষেত্রে তা হয় না বলেই মনে করেন পু'রুষদের একাংশ।

এই জন্য তারা ম্যাচিওর নারীর সন্ধানই করেন। কারণ, তারা অভিজ্ঞ। তারা সহজেই যে কোনো সমস্যা সমাধান করতে পারেন। অনেক পু'রুষই এই কথা মনে করেন। আসলে পু'রুষদের একাংশ সম্পর্কে বিশেষ কোনো ঝামেলা পছন্দ করেন না। তারা নিজেদের কাজ নিয়ে এতটাই ব্যস্ত থাকেন যে, অন্য কোনও ছোট ছোট বিষয়ে মাথা ঘামাতে চান না। তারা এই কথাও বিশ্বাস করেন যে, অল্পবয়সী মেয়েদের মধ্যে এই সমস্য়া বেশি থাকে।

আকর্ষণীয় ব্যক্তিত্ব: বয়সে বড় নারীরা ছোট ছোট বিষয় নিয়ে সমস্যা করেন না। বরং তাদের পরিণত মননের কারণে সহজেই যে কোরো বিষয় বুঝতে পারেন তারা। তাই তাদের কোরো বিষয় নিয়ে বেশি কথা বলতে হয় না। সম্পর্কে সমস্যা অনেক কম হয়। না সবাইকেই রূপ আকর্ষণ করে না। বাহ্যিক সৌন্দর্য দেখে প্রেমে পড়েন না সবাই। বরং, দিনের পর দিন একটা মানুষকে দেখতে দেখতে তার জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা দেখেই প্রেমে পড়েন। কোরো মানুষের এত ভালো ব্যক্তিত্ব হয় যে, তার দিক থেকে কোনোভাবেই নজর সরানোর উপায় থাকে না। অনেক মানুষ এই আত্মবিশ্বাস ও আকর্ষণীয় ব্যক্তিত্বের সন্ধানেই থাকেন। বয়সে বড় কোনো নারীর মধ্য়ে সেই জিনিসটা পেলেই তখন তার প্রেমে পড়তে এক মিনিটও সময় নেন না যুবকেরা।

যত্ন-আদর পেতে চান: সত্যি কথা বলতে বেশিরভাগ পু'রুষ সঙ্গীই এক একজন ‘ম্যান চাইল্ড’! এই বিষয়টি নিয়ে মহিলাদের মধ্য়ে হাসিঠাট্টা চলতেই থাকে। আড্ডা দেওয়ার সময় কোনো নারী হয়তো বলেন যে, তার স্বামীকে সব হাতের কাছে গুছিয়ে দিতে হয়। আবার কেউ বলেন যে, স্বামীকে পানি খাওয়ার কথা পর্যন্ত মনে করিয়ে দিতে হয়! সত্য়িই ওরা ওরকম হন। ওরা একটু যত্ন আদর পেতে ভালোবাসেন। আবদার করতে ভালোবাসেন। আর বয়সে বড় নারীদের কাছে এই আবদার করা আরো সহজ হয়ে যায়। অন্তত অনেক পু'রুষই তাই মনে করেন। প্রেমিকার কাছে যেন ছোট ছোট আবদারগুলো তারা করতে পারেন। প্রেমিকা যেন তাদের একটু যত্ন করে রাখে।

যখন দায়িত্ব নেয়ার কথা ওঠে: পু'রুষরা সব সময় একাই দায়িত্ব নেবেন? এরকম কেন হবে? কারণ, কোনো একজন পু'রুষের প্রতি ইতিমধ্য়েই হয়তো অনেক দায়িত্ব আছে। অফিসে কাজর দায়িত্ব আর তারপরে পরিবারেরও দায়িত্ব থাকে। এই মুহূর্তে তারা এমন কাউকে চান, যিনি নিজের দায়িত্ব নিজেই নিতে পারেন। পাশাপাশি একে অপরের দায়িত্ব তারা ভাগাভাগি করে নিতে পারেন। কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে চলতে পারেন।

প্রেমিকার থেকে এসব জিনিসের আশায় থাকেন অনেক পু'রুষ। আর সেই জন্য বয়সে বড় নারীর প্রতিই বেশি আকর্ষণ থাকে তাদের।

সূত্র: এই সময়

Check Also

‘শারীরিক চাহিদা’ মেটাতে না পারায় স্বামীকে খু”ন!

মাত্র দেড় মাস আগে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরের আগনুকালি গ্রামের মৃত আবুসামার ছেলে শরিফুল (২৫) বিয়ে করেছিলেন …