Home / বিনোদন / কারাগারে ভাত-মুরগির মাংস খেয়েছেন এএসআই সৌমেন

কারাগারে ভাত-মুরগির মাংস খেয়েছেন এএসআই সৌমেন

পরকীয়ার জেরে কুষ্টিয়ায় প্রাক্তন স্ত্রীসহ তিনজনকে হ'ত্যা মামলার একমাত্র আসামি বহিষ্কৃত এএসআই সৌমেন রায় কারাগারে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর থাকে কোয়ারেন্টাইনে রাখে হয়েছে। বর্তমানে তার অবস্থা শঙ্কামুক্ত, দুপুরে মুরগির মাংস দিয়ে ভাত খেয়েছেন সৌমেন রায়।

বৃহস্পতিবার বিকেলে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন কুষ্টিয়া জেলা কারাগারের জেল সুপার তায়েদ উদ্দিন মিয়া।

তিনি জানান, কারাগারে নেয়ার পরদিন এএসআই সৌমেন অসুস্থ হয়ে পড়েন। হঠাৎ তার র'ক্তচাপ বেড়ে যায়। সঙ্গে সঙ্গে তাকে কারা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে ওঠার কয়েক ঘণ্টা পরই তাকে করোনা ওয়ার্ডে পাঠানো হয়েছে। কারাগারে আসার পর থেকেই সৌমেন একেবারে চুপচাপ রয়েছেন। তবে তিনি যেন কোনো অঘটন ঘটাতে না পারেন সেজন্য বিশেষ নজরদারিতে রাখা হয়েছে।

জেল সুপার জানান, জেলায় করোনা শনাক্তের হার বেড়ে যাওয়ার পর থেকেই কারাগারের ভিআইপি বন্দিদের কক্ষগুলো নতুন আসামিদের কোয়ারেন্টাইনের জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে। সৌমেনকেও সেখানে রাখা হয়েছে। সেখানে তার সঙ্গে আরো কয়েকজন আসামি আছে। ১৪ দিন রাখার পর তাকে অন্য ওয়ার্ডে রাখা হবে। বর্তমানে সৌমেন রান শঙ্কামুক্ত, দুপুরে মুরগির মাংস দিয়ে ভাত খেয়েছেন। অন্য বন্দিদের মতোই স্বাভাবিক জীবনযাপন করছেন তিনি।

রোববার (১৩ জুন) বয়ফ্রেন্ড ও একমাত্র ছেলেসহ প্রাক্তন স্ত্রী আসমাকে মাথায় গুলি করে হ'ত্যা করেন খুলনার ফুলতলা থানার এএসআই সৌমেন রায়। ঘটনার পর জনগণের সহায়তায় তাকে নিজের সার্ভিস রিভলভার, ম্যাগাজিন ও গুলিসহ আটক করে পুলিশ। সোমবার কুষ্টিয়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. এনামুল হকের আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন সৌমেন। একইদিন বিকেলে আদালত থেকে তাকে কুষ্টিয়া জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

এদিকে ঘটনার দিন বিকেলেই এএসআই সৌমেন রায়কে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। এ ঘটনায় খুলনা রেঞ্জ থেকে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত শেষে তার বিরুদ্ধে সর্বশেষ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার খায়রুল আলম।

Check Also

পরীমনির বাসায় মিলেছে ভয়ঙ্কর এলএসডি-আইস মাদক

রাজধানীর বনানীতে আলোচিত চিত্রনায়িকা পরীমনির বাসায়অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ মাদকসহ তাকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন …