Home / বিনোদন / এক দিনে ৩০০ পুরুষের সঙ্গে পর্ন সিনেমায় অভিনয়

এক দিনে ৩০০ পুরুষের সঙ্গে পর্ন সিনেমায় অভিনয়

পর্ন সিনেমার অভিনয়শিল্পীদের টাকার অভাব নেই, এমনটাই ধারণা বেশিরভাগ মানুষের। কিন্তু সত্যি কি তাই? সম্প্রতি একজন পর্নস্টার নিজের কাহিনী প্রকাশ্যে আনেন ৷ তিনি জানান, এই পেশায় আসার পর নানা ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছিল তাকে।

আমেরিকার অভিনেত্রী জ্যাসমিন পর্ন দুনিয়ায় বেশ জনপ্রিয়। নয়ের দশকে পর্ন ফিল্মের ইন্ডাস্ট্রি থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়ে পেশা বদল করেন তিনি। এরপর হয়ে যান একজন পেশাদার কুস্তিগীর।

পর্ন সিনেমায় দীর্ঘদিন অভিনয় করার খারাপ অভিজ্ঞতাও শেয়ার করেছেন তিনি। ১৯৯০ সালে আমেরিকায় যেসব পর্ন ছবি তৈরি হত, সেখানে বেশিরভাগ ছবিতেই জ্যাসমিনকে অভিনয় করতে দেখা যেত৷ কিন্তু জ্যাসমিনকে সবাই চিনতে তখনই পারেন, যখন একটি পর্ন ছবিতে একসঙ্গে ৩০০-র বেশি পু'রুষের সঙ্গে কাজ করতে দেখা যায় তাকে ৷ জ্যাসমিনের মনে হত, যেন তিনি কোনো সার্কাসে রয়েছেন ৷ যেখানে ‘কাজ’ শেষ করাটাই শুধু তার কাজ ৷

তিনি বলেন, মানুষ আপনাকে এমন অনেক কিছুর জন্যও মনে রাখেন, যা আপনি নিজেই মনে করতে চান না ৷ পর্ন ছবিতে ৩০০ পু'রুষের সঙ্গে ভিডিও বানাতেও অসুবিধা ছিল না তার ৷ ওই অভিজ্ঞতা নাকি মজারই ছিল ৷ কিন্তু এই কাজ ১০ ঘণ্টা ধরে টানা করে যাওয়াটা মোটেই সহজ কাজ নয় ৷

জনপ্রিয়তা পাওয়ার কিছু দিন পরেই এই পেশাকে গুডবাই জানান তিনি ৷ এরপর কুস্তির দুনিয়ায় পা রাখেন জ্যাসমিন ৷ সেখানেও দারুণ সাফল্য পান ৷ এবং কুস্তিগীর হিসেবেও যথেষ্ট নামডাক হয় তার।

জ্যাসমিন জানান, পর্ন ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করতে তার একেবারেই ভালো লাগছিল না ৷ তাই তিনি পেশা বদলের সিদ্ধান্ত নেন৷ খুব ছোটবেলার থেকেই কুস্তির দিকে জ্যাসমিনের ঝোঁক ছিল৷ তাই পর্ন ফিল্মে কাজ ছাড়ার পর তিনি বেশ কিছুদিন কুস্তি শেখেন৷ তারপর নেমে পড়েন রিং-এ ৷ সেখানে অনেক সাফল্য পেয়েছেন তিনি।

Check Also

পর্নো জগতের সম্পর্কে ভয়াবহ তথ্য দিলেন মিয়া খলিফা

পর্নো দুনিয়া সম্পর্কে ভয়াবহ তথ্য দিলেন পর্নো জগতের বিখ্যাত সাবেক তারকা মিয়া খলিফা (২৬)। অভিযোগ …