Home / এক্সক্লুসিভ / আঁটসাঁট অন্তর্বাস ব্যবহারে ভয়ানক বিপদ

আঁটসাঁট অন্তর্বাস ব্যবহারে ভয়ানক বিপদ

নিজেকে ফিট দেখাতে নারী এবং পু'রুষ উভয়ই অন্তর্বাস ব্যবহার করেন। সবাই চেষ্টা করেন নিজের মনের মতো সঠিক অন্তর্বাসটিকে খুঁজে নেয়ার। কিন্তু আমাদের মধ্যে এমন অনেকেই আছেন যারা জানেন না যে, নিজের জন্য সঠিক মাপের অন্তর্বাস কোনটি?

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভুল অন্তর্বাস পরার কারণে শারীরিক ক্ষতির আশংকা বাড়ে। তাই পোশাক যেমন দেখে কেনেন, তেমনই শুধু রং কিংবা ডিজাইন নয়, অন্তর্বাস কেনার সময়ও সতর্ক থাকুন। তা যেন অবশ্যই সঠিক সাইজের হয়।

কী বলছে গবেষণা?

ধূমপান, মদ্যপান, অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন ইত্যাদি পু'রুষের বন্ধ্যাত্বের সমস্যা বাড়িয়ে তোলে, এ কথা কমবেশি এখন অনেকেরই জানা। কিন্তু জানেন কি, অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির গবেষণা বলছে, পু'রুষদের আঁটসাঁট অন্তর্বাসের কারণে শুক্রাণু বা স্পার্ম কাউন্ট কমে যেতে পারে। ‘হিউম্যান রিপ্রোডাকশন’ জার্নালে প্রকাশিত তথ্য বলছে, বক্সার জাতীয় অন্তর্বাস পরলে শুক্রাণুর সংখ্যা বা ঘনত্ব বেশি ভালো থাকে।

এদিকে আমেরিকার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ হেলথের একটি জার্নালে প্রকাশিত রিপোর্ট বলছে, নারীরা যদি নিজের সাইজের থেকে ছোট প্যান্ট বা অন্তর্বাস পরেন, তাহলে তাদের ইউরিনারি ট্রাক ইনফেকশন হওয়ার আশংকা বাড়ে। খুব টাইট প্যান্ট পরার কারণে গোপনাঙ্গে ইস্ট ইনফেকশন হতে পারে।

ফিটিংস মানেই এক সাইজ ছোট নয়

যেকোনো একটা অন্তর্বাস নয়। স্টাইল করতে ও টাইট রাখতে গিয়ে এক সাইজ ছোট অন্তর্বাসের দিকে ঝুঁকবেন না। এই প্রবণতা অনেকেরই থাকে। এতে ক্ষতি অনেক। পোশাক কেনার মতোই অন্তর্বাস কেনার আগেও বিশেষ সচেতন থাকুন। এক্সারসাইজের সময় বিশেষ ধরনের (যেমন স্পোর্টস ব্রা) অন্তর্বাস ব্যবহার করুন। খুব টাইট অন্তর্বাস পরলে ঘাম জমে চুলকানি হতে পারে। অন্তর্বাস কেনার সময় খেয়াল রাখুন, তা যেন সুতির বা অন্য কোনো নরম কাপড়ে হয়। যাতে র‍্যাশ না হয়। নিজের সাইজ না জানলে, যেখান থেকে কিনছেন, সেই দোকানের কারো সাহায্য নিন।

ব্রা-বন্দি জীবনকে না বলুন

ইংরেজিতে একটা বাক্য এখন দারুণ জনপ্রিয়। ‘ব্রালেস ইজ ফ্ললেস’। তাই ব্রা-বন্দি জীবনকে না বলুন। গবেষণা থেকে জানা গেছে, সারাদিন চাপা অন্তর্বাস পরে থাকলে বুকের হাড়ে ক্ষতি হতে পারে। পিঠে ব্যথা হতে পারে। এমনকি, কিছু কিছু গবেষণা বলছে, স্ত'নে ক্যান্সার পর্যন্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

বিপদ এড়াতে করণীয়

** অন্তর্বাস কেনার সময় আরাম ও সুস্থতার দিকে খেয়াল রাখুন।

** ফ্যান্সি ফ্যাব্রিক না কিনে সুতির অন্তর্বাস কিনুন।

** সারাদিন একই অন্তর্বাসে কাটাবেন না।

** ঘুমানোর সময় অন্তর্বাস পরবেন না।

** অন্তর্বাস সবসময় হাতে কাচুন।

** ওয়াশিং মেশিন বা ড্রায়ারে পরিষ্কার করবেন না।

** এক থেকে দেড় মাস পর নতুন অন্তর্বাস কেনা একান্তই জরুরি।

** এক্সারসাইজের সময় সাধারণ অন্তর্বাস নয়। ঘাম জমে ব্যাকটেরিয়াল সংক্রমণের সম্ভাবনা বাড়ে।

Check Also

ভাবিকে বিয়ে করা কি জায়েজ?

দাম্পত্য সম্পর্কের গুরুত্ব বোঝাতে পবিত্র কোরআনে আল্লাহ রাব্বুল আলামীন ইরশাদ করেছেন, স্ত্রীরা তোমাদের ভূষণ এবং …