Home / বিনোদন / অবশেষে স্বীকৃতি পেল বড় ছেলে, প্রকাশ্যে এলো যশের প্রথম পক্ষের ছেলে

অবশেষে স্বীকৃতি পেল বড় ছেলে, প্রকাশ্যে এলো যশের প্রথম পক্ষের ছেলে

যশরত এবং ঈশানের (Yishaan) পিতৃপরিচয় বিতর্কের মাঝেই কার্যত টলিউড অভিনেতা যশ দাশগুপ্তের (Yash Dasgupta) পূর্ব জীবন নিয়ে শুরু হয়েছে কাটাছেঁড়া।

সংবাদমাধ্যমের কাছে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে নতুন বিতর্কের সূত্রপাত ঘটিয়েছেন যশের প্রাক্তন স্ত্রী শ্বেতা সিংহ কালহানস (Shewta Singh Kalhans)। প্রথমবার সংবাদমাধ্যমের কাছে তিনি স্বীকার করেন, তিনিই যশের প্রথম স্ত্রী। তাদের ৯ বছরের এক সন্তানও আছে। প্রাক্তন স্ত্রীর বয়ানের কয়েক ঘন্টার মাথাতেই বড় ছেলেকে নিয়ে মুখ খুললেন যশ।

টলিউড অভিনেতা এই মুহূর্তে সদ্যজাত সন্তানের অভিভাবকত্বের পাশাপাশি পিতৃত্বের দায়িত্বও বেশ ভালোভাবেই পালন করছেন। পাশাপাশি শুটিংয়ের কাজেও ফিরেছেন তিনি। ‘চিনে বাদাম’-এর শ্যুটিংয়ের থেকে সংবাদমাধ্যমে তরফ থেকে তার কাছে প্রশ্ন রাখা হয়, “এখন যশের ব্যস্ত সময়ের অনেকখানি নিয়ে নিয়েছে ছোট্ট ঈশান, কেমনভাবে কাটছে দিন?” যশ উত্তর দিলেন, “খানিকটা সময় অবশ্যই ঈশান নিয়ে নিয়েছে, সেটা স্ট্রেস বাস্টার…মুড অফ থাকলে, স্ট্রেসের মধ্যে থাকলে সেটা কাটিয়ে উঠতে অবশ্যই সাহায্য করে”।

এরপর যশের কাছে সংবাদমাধ্যমের প্রশ্ন ছিল, “ঈশান এই কদিনে ঠিক কতটা বড় হল? যার প্রত্যুত্তরে যশ বলেন, “খুব ছোট ও। সবে ১৫ দিন বয়স। এতো তাড়াতাড়ি কিচ্ছু পরিবর্তন আসে না, বিশ্বাস করুন। আমার ছেলে আছে, যার ইতিমধ্যেই ৯ বছর বয়স হয়ে গেছে, এতো তাড়াতাড়ি কিচ্ছু চেঞ্জ আসে না। এটা সংবাদমাধ্যমের বাড়াবাড়ি”। উল্লেখ্য, নিজের বিবাহিত জীবন, প্রথম সন্তান সম্পর্কে এতদিন সব তথ্য গোপনই রেখেছিলেন যশ। এবার ঈশানকে স্বীকৃতি দেওয়ার পাশাপাশি বড় ছেলের প্রসঙ্গও প্রকাশ্যে তুলে ধরলেন তিনি।

যশোর প্রথম বিয়ে, স্ত্রী এবং সন্তান সম্পর্কে গুগোলে কোনও তথ্যই মেলে না।কারণ গুগলের কাছে তিনি আজও অবিবাহিত! যদিও আজ থেকে প্রায় বেশ কয়েক বছর আগে শ্বেতা সিংহ কালহানসকে বিয়ে করেছিলেন তিনি। এরপর তাদের সন্তানের জন্ম হয়। কিন্তু যশের প্রথম বিয়ে টেঁকেনি। যশ টলিউডে পা রাখার আগেই তাদের বিচ্ছেদ হয়ে যায়।

বাংলা টেলিভিশন ইন্ডাস্ট্রিতে পা রাখার আগে মুম্বাইয়ের টেলিভিশন জগতে কাজ করছিলেন যশ। ‘না আনা ইস দেশ লাডো’ সিরিয়ালে কাজ করার সময় যশ এবং শ্বেতার সন্তানের জন্ম হয়। ছেলের বয়স যখন দুই বছর, তখনই যশ এবং শ্বেতার বিচ্ছেদ হয়ে যায়। তখন বাংলা টেলিভিশনে সদ্য পা রাখছেন যশ। যশের বিরুদ্ধে গার্হস্থ্য হিংসা মামলার অভিযোগ এনেছিলেন শ্বেতা। ৪৯৮ ধারায় মামলা দায়ের হওয়াতে যশকে সেই সময় জেলেও যেতে হয়েছিল।

২০১৩ সালে, ‘বোঝে না সে বোঝে না’ র শুটিং চলাকালীন তাদের বিচ্ছেদ হয়ে যায়। বিচ্ছেদের খবর সংবাদ মাধ্যমের থেকে আড়ালেই রেখেছিলেন যশ। তাদের সন্তানের দায়িত্ব ছিল পারস্পরিক হেফাজতের অধীনে। যদিও তাদের ছেলে এখন যশের সঙ্গেই থাকে। আর শ্বেতা ফিরে গিয়েছেন মুম্বাইয়ে। তিনি সেখানে একটি সংবাদ সংস্থার সংবাদকর্মী হিসেবে কাজ করেন।

Check Also

পর্নো জগতের সম্পর্কে ভয়াবহ তথ্য দিলেন মিয়া খলিফা

পর্নো দুনিয়া সম্পর্কে ভয়াবহ তথ্য দিলেন পর্নো জগতের বিখ্যাত সাবেক তারকা মিয়া খলিফা (২৬)। অভিযোগ …